গাজর চাষে প্রথমবারেই বাজিমাত

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ)
প্রকাশিত: ০৪:১৮ পিএম, ২৪ জানুয়ারি ২০২১

পরীক্ষামূলকভাবে গাজর চাষ করে প্রথমবারেই বাজিমাত করেছেন কৃষক সাদেক মিয়া। রক্তিম আভা ছড়িয়ে মাটির নিচে ধীরে ধীরে বেড়ে উঠছে গাজর।

আলুর মতোই মাটির নিচে পরিপূর্ণ বিকাশ হয় গাজরের। মাটি থেকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান পেয়ে উদ্ভিদগুলো সমৃদ্ধি লাভ করে তার ফল বৃদ্ধিতে। কচি পাতাগুলোতে ধরা দেয় কোমলতার হাসি।

হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলার ভুলকোট গ্রামের একটি খেতে শোভা পাচ্ছে গাজর। খামখেয়ালির ছলে অল্প জমিতে গাজর চাষ করে কৃষক সাদেক মিয়া এখন ঘরে তুলছেন দ্বিগুণ লাভের এই সবজি।

কৃষক সাদেক মিয়া বলেন, আমাদের উপজেলায় কখনো গাজর চাষ হয়নি। কৃষি অফিসার মো. শামিমুল হক শামিম যখন গাজর চাষ করার কথা বললেন প্রথমে আমার বিশ্বাসই হয়নি। তবুও তার কথা রাখতে গিয়ে অল্প জমিতে গাজর চাষ করি। কিন্তু এখন আমি নিজেই অবাক। মাত্র এক হাজার টাকা খরচ করে গাজর চাষ করেছি। এখন আমি প্রায় ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করতে পারব।

তিনি আরও বলেন, স্বল্প খরচে দিগুন লাভ হওয়া এই গাজর আগামীতে কয়েক বিঘা জমিতে চাষ করব। আমার এই গাজর চাষের ফলন দেখে এলাকার অনেক চাষিই আগ্রহ দেখাচ্ছে।

jagonews24

স্থানীয় কৃষি অফিস জানায়, গাজর পুষ্টিগুণসম্পন্ন একটি সবজি। একে ‘সুপার ফুড’ বলা হয়। গাজরে ভিটামিন ‘এ’ সহ অন্যান্য উপাদান থাকায় দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি, ক্যান্সার প্রতিরোধ, অ্যান্টিঅক্সিজেন বৃদ্ধি, ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিসহ বলিরেখা রুখতে এবং কোলেস্টোরেল নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা রাখে।

এ বিষয়ে বাহুবল উপজেলার উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. শামিমুল হক জাগো নিউজকে বলেন, গাজর একটি অর্থকারী ফসল হিসেবে সারাদেশে কৃষিখাতে জায়গা করে নিয়েছে। এ উপজেলায় কখনো গাজর চাষ হয়নি। আমি নিজে উদ্যোগ নিয়ে প্রথমবারের মতো গাজর চাষ করিয়েছি। আশা করি আগামীতে গাজর চাষে কৃষক এগিয়ে আসবেন এবং এ থেকে প্রচুর লাভবান হবেন।

এ ব্যাপারে বাহুবল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আব্দুল আওয়াল জাগো নিউজকে বলেন, অর্থকারী ফসল হিসেবে কৃষি খাতে গাজর একটি সম্ভাবনাময় ফসল। সঠিকভাবে বাজারজাত করা ও সংরক্ষণের ব্যবস্থা থাকলে কৃষকরা উপকৃত হবেন। এছাড়া আমাদের পক্ষ থেকে গাজর চাষে কৃষকদের সব রকম সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

কামরুজ্জামান আল রিয়াদ/এফএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]