কবির স্মরণে অঝোরে কাঁদলেন প্রতিমন্ত্রী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নেত্রকোনা
প্রকাশিত: ০৮:৫২ এএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

কবি কামরুজ্জামান চৌধুরীর স্মরণসভায় অঝোরে কাঁদলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৭টা থেকে শহরের মোক্তারপাড়া এলাকার বকুলতলায় কবি কামরুজ্জামান চৌধুরীর স্মরণে নাগরিক স্মরণানুষ্ঠানে বক্তব্য দানকালে স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন প্রতিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও দলমত নির্বিশেষে এমনকি রাজনৈতিক নানা সংগঠনের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

‘নেত্রকোনার বাতিঘর’ হিসেবে আখ্যায়িত হওয়া নেত্রকোনা সাহিত্য সমাজের সভাপতি অধ্যাপক কবি কামরুজ্জামান চৌধুরী। তিনি গত ১৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকার একটি হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

প্রাণের টানে ও প্রিয় মানুষটির টানে নিজের গুরুত্বপূর্ণ কাজ ফেলে বিশিষ্টজনেরা এতে অংশ নেন। নিজের মূল্যবান সময় ব্যয় করে অনুষ্ঠানে এসেছিলেন বাংলাদেশ সরকারের সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরুও।

কবিকে নিয়ে বলতে গিয়ে অঝোরে কাঁদতে শুরু করেন প্রতিমন্ত্রী। কবির প্রস্থান মেনে নিতে না পারায় বুকের চাপা কষ্ট ঢেলে দিয়ে ডায়েসের সামনে দাঁড়িয়ে কাঁদলেন তিনি। কিছুতেই থামছিল না তার কান্না। বারবার চোখ মুছে যাচ্ছিলেন তিনি। এমন দৃশ্যে পুরো অনুষ্ঠান তথা উপস্থিত সকলের মধ্যে নেমে আসে আরও বিষাদ।

কাঁদতে কাঁদতে প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু বলেন, আজ এই বকুলতলায় বসন্তকালীন উৎসব হওয়ার কথা ছিল। কামরুল অনুষ্ঠানে থাকত, কবিতা পড়ত। কিন্তু আজ করতে হচ্ছে তাকে ঘিরে শোকসভা, স্মরণানুষ্ঠান!

কামরুল সংস্কৃতি ও সংগঠনের মধ্য দিয়ে নেত্রকোনাকে তুলে ধরেছেন। কামরুল আছেন, কামরুল থাকবেন। এসব কথা বলে কাঁদতে কাঁদতে একপর্যায়ে মঞ্চ থেকে নেমে যান প্রতিমন্ত্রী।

কবির স্মরণানুষ্ঠানে অধ্যাপক মতিন্দ্র সরকারের সভাপতিত্বে সঞ্চালনা করেন সাহিত্য সমাজের সাধারণ সম্পাদক কবি সাইফুল্লাহ এমরান। এতে স্থানীয় ও ঢাকা থেকে প্রাণের টানে ছুটে আসা কবি, সাংবাদিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তারা অংশ নেন।

কবিকে স্মরণ করে সাহিত্য সমাজের পাশাপাশি প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু, জেলা প্রশাসক কাজী মো. আবদুর রহমানসহ বিভিন্ন জন ও সংগঠনের পক্ষ থেকে অনুষ্ঠানস্থলে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও কবির প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়।

এইচএম কামাল/এফএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]