পেটে লাথি মেরে নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনায় বাবা-ছেলে গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুমিল্লা
প্রকাশিত: ০৮:৪৫ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

কুমিল্লায় ৯ মাসের এক অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূকে নির্যাতনের কারণে তার নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনায় এজাহারনামীয় আসামি আবুল কালাম ও তার ছেলে শরীফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতে গ্রেফতারের পর মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়। এদিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নবজাতকের মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে।

সন্ধ্যায় এসব তথ্য জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) ও চকবাজার পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) কিবরিয়া।

মামলা সূত্রে জানা যায়, নগরীর ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের পাথুরিয়া পাড়ার সোহেল আরমানের সঙ্গে বসতবাড়ির সম্পত্তি নিয়ে পার্শ্ববর্তী বাড়ির তার মামা আবুল কালামের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধের জেরে রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় আবুল কালামের পরিবারের লোকজন সোহেল আরমানের স্ত্রী শিল্পী আরমানকে মারধর করেন। একপর্যায়ে আবুল কালামের স্ত্রী শাহনাজ বেগম সোহেল আরমানের গর্ভবতী স্ত্রী শিল্পী আরমানের পেটে লাথি মারেন। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে ওই গৃহবধূ ছেলেসন্তান প্রসব করেন এবং প্রসবের পর নবজাতকের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনার পর মৃতসন্তান কোলে নিয়ে সোহেল দম্পতি বিকেলে কোতোয়ালি মডেল থানায় যান। গৃহবধূ শিল্পী আরমান বাদী হয়ে রাতে ৬ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কোতোয়ালি মডেল থানার অধীন চকবাজার পুলিশ ফাঁড়ির এসআই কিবরিয়া জানান, এ ঘটনায় শিল্পী আরমান বাদী হয়ে দাখিল করা অভিযোগটি সোমবার রাতে এফআইআর হিসেবে নেয়া হয়। এ মামলায় আবুল কালাম, তার স্ত্রী শাহনাজ বেগম, মেয়ে লিমা, ছেলে শরীফ, আরিফ ও মেয়ের জামাতা সফিককে আসামি করা হয়েছে। এদের মধ্যে আবুল কালাম ও তার ছেলে শরীফকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মো. কামাল উদ্দিন/এসআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]