সাংবাদিকদের ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে মানা!

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ১২:২১ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে সাংবাদিকদের ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে বাঁধা দিয়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শহিদুল ইসলাম। নির্বাচন কমিশনের দেয়া পর্যবেক্ষক কার্ড থাকা সত্ত্বেও সাংবাদিকদের কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হয়নি।

রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কেরোয়া সিরাজিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

শহিদুল ইসলাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার।

ঘটনার সময় ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনের জন্য সাংবাদিকরা ওই কেন্দ্রে যান। এ সময় ম্যাজিস্ট্রেটের অনুমতি ছাড়া প্রিসাইডিং অফিসার ও পুলিশ কেন্দ্রে সাংবাদিকদের ঢুকতে দিচ্ছিল না। পরে সাংবাদিকরা ম্যাজিস্ট্রেট শহিদুল ইসলামের কাছ থেকে অনুমতি নিতে যান। তিনি সাংবাদিকদের পর্যবেক্ষক কার্ড যাচাই করেন।

অনুমতি চাইলে ম্যাজিস্ট্রেট শহিদুল ইসলাম বলেন, আপনাদের পর্যবেক্ষক কার্ড থাকলেও কেন্দ্রে ঢুকতে পারবেন না। কার্ডে যেভাবে নির্দেশনা রয়েছে সেটি মানতে হবে।

এদিকে পর্যেবক্ষক কার্ডে সাংবাদিকদের শুধুমাত্র প্রিসাইডিং অফিসারের নির্দেশনা মেনে চলার নির্দেশনা রয়েছে। ভোট কেন্দ্রের গোপন কক্ষে প্রবেশ নিষেধ ছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশনার ব্যাপারে কোনো বিধি উল্লেখ ছিল না।

ওই কেন্দ্রের কয়েকজন ভোটারের অভিযোগ, আওয়ামী লীগের এজন্টরা ভোটারদেরকে নৌকায় ভোট দিতে বাধ্য করছেন। কাউন্সিলরের কয়েকটি ইভিএম বিকল। এজন্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের ভোট নিয়ে সমস্যা হচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

অন্যদিকে শায়েস্তানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার হাবিবুর রহমান ও মোবারক হোসেনও সাংবাদিকদের কেন্দ্রে ঢুকতে বাধা দিয়েছেন।

তাদের দাবি, ‘সাংবাদিকদের কেন্দ্রে ঢোকা নিয়ে নির্বাচন কমিশনের নিষেধ রয়েছে।’

রায়পুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ ৬ জন প্রার্থী মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সাধারণ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে লড়ছেন ৫৭ জন।

কাজল কায়েস/এফএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]