রায়পুরে মেয়র আ.লীগের রুবেল, জামানত হারাচ্ছেন ৪ প্রার্থী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৯:২২ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট (নৌকা) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে ভোট গণনা শেষে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা নাজিম উদ্দিন উপজেলা পরিষদের হলরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

নির্বাচনে গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট আট হাজার ৪০২ ভোট পেয়ে তিনি বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী এবিএম জিলানী (ধানের শীষ) এক হাজার ৪৪১ ভোট পেয়েছেন।

নির্বাচনে জামায়াত সমর্থিত মনির আহমেদ (মোবাইলফোন), ইসলামী আন্দোলনের আবদুল খালেক (হাতপাখা), নাসির উদ্দিন সগির (জগ), মাসুদ উদ্দিন (নারিকেল গাছ) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

এরমধ্যে মনির আহমেদ ৩০৭ ভোট ও অন্যরা আরও কম ভোট পেয়েছেন। নির্বাচন কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী, কাস্টিং ভোটের আট ভাগের একভাগ যদি কোন প্রার্থী না পান তাহলে তিনি জামানত হারান বলে গণ্য হবেন। মেয়র পদে একজন প্রার্থীকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে ২০ হাজার টাকা জামানত রাখতে হয়। আট ভাগের একভাগ ভোট না পেলে তিনি জামানত হারান। নিয়ম অনুযায়ী এ চার প্রার্থীর জামানত হারাবেন।

কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হলেন ১ নম্বর ওয়ার্ডে আবু নাছের বাবু, ২ নম্বর ওয়ার্ডে মাহবুবুর রহমান রিজভি, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে মো. ইউছুফ মিয়া, ৪ নম্বর ওয়ার্ডে আনোয়ার হোসেন বাহার, ৫ নম্বর ওয়ার্ডে জাকির হোসেন নোমান, ৬ নম্বর ওয়ার্ডে আইনুল কবির মনির, ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মেহেদী হাসান শিশির পাঠান, ৮ নম্বর ওয়ার্ডে আবুল হোসেন সর্দার ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে রুবেল প্রাধানিয়া।

সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে নাজমা আরা মনি, ফেরদৌসী আরা স্বপ্না ও শামছুন নাহার লিলি নির্বাচিত হয়েছেন। এরমধ্যে স্বপ্না বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

কাজল কায়েস/আরএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]