আ.লীগের দুই পক্ষে দফায় দফায় সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ২০

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুষ্টিয়া
প্রকাশিত: ০১:১৫ পিএম, ০৯ এপ্রিল ২০২১

কুষ্টিয়ার খোকসায় আধিপত্য বিস্তারে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষে দুই পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবারের (৭ এপ্রিল) সংঘর্ষের জেরে বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) দ্বিতীয় দফায় হামলা, বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটতরাজের ঘটনা ঘটে। দুই দফায় হামলায় শাহজাহান আলী (৪৫), আমিরুল ইসলাম (৪০), রাশিদুল (৩৫), সাইদুল (৪০), মুন্নু (৬০), তুহিন (২৩), আলমাসসহ (২০) ২০ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে শাহজাহানকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্র্তি করা হয়। এছাড়া আহত দুই পুলিশ সদস্য জালাল ও নাহিদ প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন বলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, উপজেলার কোমরভোগ গ্রামে ইউপি সদস্য স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা জাবেদ আলী ও নয়নের সহযোগীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এরই জেরে বুধবার রাতে দুই পক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলায় অংশ নেয়। রাতে গ্রামে পুলিশ মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

এ ঘটনার জেরে বৃহস্পতিবার পুলিশের উপস্থিতিতেই দ্বিতীয় দফায় হামলা হয়। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ হামলায় রাস্তার দুই পাশের প্রায় অর্ধশত বাড়ি ভাঙচুর করা হয়। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে লুটের অভিযোগও করেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা।

jagonews24

হামলাকারী নয়ন গ্রুপের সদস্যরা জাবেদ মেম্বারের অনুসারী আমিরুল, খাইরুল, শরিফ, লুইচ, হাফিজুল, পলাশ তুহিন, আলতোন, নিকাম উদ্দিন ও শাহাদতের বাড়ি ভাঙচুর করে।

অপরদিকে জাবেদ মেম্বারের লোকজন প্রতিপক্ষ নয়ন গ্রুপের জিয়ারুলের মুদি দোকান, আবু বক্কর, শহীদ, বাদশা, আজিজ, হামিদ, রিপন, বিল্লাল, আরব, শিপন, মিলন ও মস্তোফার বাড়ি ভাঙচুর করে।

সরেজমিনে দেখা যায়, দফায় দফায় হামলার পর গোটা গ্রামটি এখন পুরুষশূন্য। গ্রামের রাস্তাজুড়ে ইটের টুকরো পড়ে আছে। রাস্তার দুই পাশের প্রতিটি বাড়ি হামলার ক্ষত নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। হামলার আহত অনেক নারী ও শিশুদের গ্রাম্যডাক্তার ডেকে চিকিৎসা নিতে দেখা যায়।

খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, কোমরভোগে হামলার ঘটনায় পৃথক তিনটি মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় ১৯ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন আছে ও বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

প্রসঙ্গত, বুধবার রাতে কোমরভোগ গ্রামের স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা ও ইউপি সদস্য জাবেদ আলী ও নয়নের সহযোগীদের মধ্যে বাকবিতণ্ড হয়। একপর্যায়ে একপক্ষ প্রতিপক্ষের লোকদের ওপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে ১০ জন আহত হন

 

আল-মামুন সাগর/এসএমএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]