কাদের মির্জার ‘সেকেন্ড ইন কমান্ড’ মিকন আটক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ০৮:১৭ এএম, ২০ এপ্রিল ২০২১

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার সেকেন্ড ইন কমান্ড হিসেবে পরিচিত চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও আসামি নাজিম উদ্দিন মিকনকে (৪২) আটক করেছে পুলিশ।

এ সময় নুর উদ্দিন খাজা (৪০) নামে তার এক সহযোগীকেও আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) ভোরে প্রযুক্তির মাধ্যমে সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে পার্শ্ববর্তী কবিরহাট উপজেলার কবিরহাট বাজারের পাশের একটি গোপন আস্তানা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

সহযোগীসহ মিকনের আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি।

তিনি বলেন, মিকন পুলিশের খাতায় মোস্ট ওয়ান্টেড আসামি। তাছাড়া তিনি সোমবার বসুরহাট কলাবাগানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরীকে গুলি ও পিটিয়ে পা ভেঙে দেয়ার ঘটনায় অন্যতম অভিযুক্ত। তার বিরুদ্ধে পুলিশ অ্যাসল্ট, বিস্ফোরক, দাঙ্গাহাঙ্গামা, অপহরণ, চাঁদাবাজিসহ সাতটি মামলা রয়েছে। আরও মামলা হবে।

jagonews24

আটক নাজিম উদ্দিন মিকন সিরাজপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত ফকির উদ্দিন কামালের ছেলে ও কাদের মির্জা সমর্থিত সিরাজপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কথিত সাধারণ সম্পাদক।

অন্যদিকে নুর উদ্দিন খাজা (৪০) সিরাজপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ছায়দল হক মেম্বারের ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক।

জানা গেছে, স্থানীয়ভাবে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচনসহ বিভিন্ন বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিরাজপুরের চেয়ারম্যান নুরনবী চৌধুরীর সাথে মিকনের পূর্ব বিরোধ ছিল। এক সময় বাদলের অনুসারী হিসেবে কাজ করলেও সাম্প্রতিক সময়ে মিকন কাদের মির্জার খুব ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠেন।

এদিকে আটক মিকনকে নিয়ে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অস্ত্রের সন্ধানে সাঁড়াশি অভিযান চালাচ্ছে বলেও বিশ্বস্ত সূত্র জানিয়েছে। পুলিশের ধারণা কাদের মির্জার হয়ে বিভিন্ন অপারেশনে নেতৃত্ব দেন এই মিকন। তার বাহিনীর কাছে আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

এফএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]