কেন্দুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নারী সহকর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নেত্রকোনা
প্রকাশিত: ০৯:০৪ পিএম, ১১ মে ২০২১ | আপডেট: ০৯:০৭ পিএম, ১১ মে ২০২১
প্রতীকী ছবি

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক নারী সহকর্মীকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ক্যাশিয়ার রহিম উদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার (১১ মে) উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কাছে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই নারী।

লিখিত অভিযোগে জানা যায়, বেশ কিছুদিন ধরে রহিম উদ্দিন আহমেদ ওই নারীর সঙ্গে অশালীন ভাষায় কথাবার্তা বলতেন ও আচরণ করে আসছিলেন। বারবার সতর্ক করার পরও তিনি বিরত থাকেননি। গত ২৯ এপ্রিল বিকেল ৪টার দিকে একটি প্রশিক্ষণের টাকা চাইতে গেলে তিনি ‘কুরুচিপূর্ণ’ কথা বলেন এবং ‘বাজে’ আচরণ করার চেষ্টা করেন। গত ৬ মে প্রশিক্ষণের কাগজপত্র নিয়ে তার কাছে গেলে ফের একই আচরণ করেন। ওইদিন ‘কু-ইঙ্গিত’ প্রদর্শনের পাশাপাশি ‘ভয়ভীতিও’ দেখান। এ অবস্থায় তিনি ভীত-সন্ত্রস্ত বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন ওই নারীকর্মী।

সাংবাদিকদের ওই নারীকর্মী বলেন, ‘ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে অভিযোগ করেছি। আশা করি সঠিক বিচার পাব।’

অভিযোগ বিষয়ে রহিম উদ্দিন আহমেদের বক্তব্য জানতে তার মোবাইল ফোনে কয়েকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। তবে তা বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. এবাদুর রহমান বলেন, ‘অভিযোগকারী ও অভিযুক্ত দুজনই হাসপাতালের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে রয়েছেন। যেহেতু দুজনই আমার অধীনে সরাসরি কাজ করেন এবং অভিযোগটিও গুরুতর, আমি তদন্ত করলে হয়তো বা একপেশে হতে পারে। এমন আশঙ্কা থেকে অভিযোগটি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়েছি। সেখান থেকেই তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এ বিষয়ে জেলা সিভিল সার্জন মো. সেলিম মিয়া বলেন, অভিযোগটি পেয়েছি। ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যবিশিষ্ট কমিটি করা হবে। এই কমিটি যে প্রতিবেদন দেবে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এইচ এম কামাল/এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]