যৌতুকের জন্য স্ত্রীর পায়ের রগ কেটে দেয়া সেই স্বামী আটক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লালমনিরহাট
প্রকাশিত: ০৩:১১ পিএম, ০৩ জুন ২০২১

লালনিরহাটের হাতীবান্ধায় যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় ছুরি দিয়ে দিলরুবা আক্তার টুম্পা (২৫) নামের এক গৃহবধূর পায়ের রগ কেটে দেয়ার ঘটনায় পালাতক স্বামী অছিউর রহমান প্রাণকে (২৮) আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার দইখাওয়া বাজার থেকে তাকে আটক করে পুলিশ।

আটক অছিউর উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম বেজ গ্রামের মোকলেছুর রহমানের ছেলে।

আর ভুক্তভোগী দিলরুবা আক্তার টুম্পা উপজেলার সিংগীমারী ইউনিয়নের দক্ষিণ গড্ডিমারী গ্রামের মৃত মোফাজ উদ্দিনের মেয়ে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও হাতীবান্ধা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইব্রাহিম বলেন, স্ত্রী টুম্পাকে নির্যাতনের অভিযোগে প্রাণকে আটক করা হয়েছে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিলেন। পরে বৃহস্পতিবার সকালে তাকে আটক করা হয়েছে।

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, আটক প্রাণকে দুপুরে লালমনিরহাট কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ৫ বছর আগে ভালোবেসে আদালতে বিয়ে করেন অছিউর রহমান ও টুম্পা। বিয়ের দুই বছর পর পুত্রসন্তান জন্ম দেন টুম্পা। প্রথম দিকে প্রাণের মা এই বিয়ে মেনে না নিলেও সন্তান হওয়ার পর উভয় পরিবার একত্রিত হয়ে তাদের মেনে নেয়। এভাবে কিছুদিন তাদের সংসার ভালোই চলছিল।

তবে বিয়েতে কিছু না পাওয়ায় গৃহবধূ টুম্পাকে বাবার বাড়িতে থেকে টাকা আনতে চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন শাশুড়ি মালতি। বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনতে না পারায় টুম্পার ওপর নির্যাতন শুরু করেন স্বামী-শাশুড়ি। এনিয়ে কয়েকবার সালিশও হয়েছে। তবে নির্যাতন বন্ধ হয়নি।

গত শনিবার সন্ধ্যায় দুই লাখ টাকার জন্য টুম্পাকে মারধর করেন স্বামী অছিউর রহমান। তার সঙ্গে যোগ দেন দেবর ও শাশুড়ি। নির্যাতনের একপর্যায়ে স্বামী প্রাণ ধারালো ছুড়ি দিয়ে টুম্পার পায়ের রগ কেটে দেন। পরে টুম্পার পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে থানা পুলিশের সহযোগিতায় টুম্পাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়।

রবিউল হাসান/এসএমএম/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]