সড়কে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি, দুর্ভোগে তিনশতাধিক পরিবার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ০৬:২৩ পিএম, ২১ জুন ২০২১

নোয়াখালীর চাটখিল পৌরসভার কাঁচা বাজার সংলগ্ন ভূঁইয়া কলোনিতে বসবাস করে তিনশতাধিক পরিবার। ওই কলোনির প্রবেশ পথে পল্লী বিদ্যুতের চারটি খুঁটি দীর্ঘদিন ভোগাচ্ছে এখানকার কয়েক হাজার বাসিন্দাকে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ভূঁইয়া কলোনির একমাত্র সড়কের মাঝে খুঁটিগুলো থাকায় জরুরি প্রয়োজনে অ্যাম্বুলেন্স বা ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি প্রবেশ করতে পারে না। ফলে অনেক অসুস্থ রোগী হাসপাতালে নিতে এবং আগুনে ক্ষয়ক্ষতি হলেও সংশ্লিষ্টদের কিছুই করার থাকে না।

স্থানীয়দের দাবি, ইতোমধ্যে বহুবার মানববন্ধনসহ বিভিন্ন দফতর, জনপ্রতিনিধি ও নেতাদের কাছে ধর্না দিয়েও কোনো প্রতিকার হয়নি। কোমলমতি স্কুল শিক্ষার্থীরাও এ নিয়ে রাস্তায় বিক্ষোভ করেছে। কিছুতেই সংশ্লিষ্টদের টনক নড়েনি।

কলোনির বাসিন্দা মো. কামরুল হাসান ভূঁইয়া অভিযোগ করে বলেন, এখান দিয়ে চলাচলের প্রধান রাস্তাটি এক সময় ১৫ ফুটের মতো প্রশস্ত ছিল। দখলদারদের কারণে ধীরে ধীরে রাস্তাটি এখন পাঁচ-ছয় ফুটে এসে দাঁড়িয়েছে। তার ওপর বিদ্যুতের খুঁটিগুলো দুর্ভোগ আরও বাড়িয়েছে।

স্থানীয় ব্যবসায়ী রুবেল ভূঁইয়া জানান, আবাসিক এলাকায় প্রায় ২৫ থেকে ৩০টি বহুতল ভবন রয়েছে। এখানে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে জরুরি সেবার কোনো গাড়ি প্রবেশ করতে পারে না। তিনি অবিলম্বে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটিগুলো অপসারণের জোর দাবি জানান।

অন্যদিকে আবাসিক ভবনের মালিকরা অভিযোগ করে বলেন, প্রত্যেক বছর পৌরসভায় ট্যাক্স পরিশোধ করলেও পৌরসভার পক্ষ থেকে বাড়ির মালিক এবং ভাড়াটিয়ারা নাগরিক সুবিধা পাচ্ছেন না।

নোয়াখালী পল্লী বিদ্যুতের চাটখিল জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) প্রকৌশলী মো. কামাল উদ্দিন জাগো নিউজকে জানান, বিষয়টি উপজেলা সভায় শুনেছি। তবে সুনির্দিষ্টভাবে কেউ অভিযোগ না করায় ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছে না।

চাটখিল পৌরসভার মেয়র ভিপি মো. নিজাম বলেন, অভিযোগ পেয়ে নিজেই ঘটনাস্থলে গিয়েছি। তিনশ পরিবারের চলাচলে একমাত্র সড়কে বিদ্যুতের খুঁটিগুলো জনগণের দুর্ভোগ বাড়িয়েছে।

বিষয়টি তিনি স্থানীয় নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ি) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইবরাহীমকে জানিয়ে প্রতিকার চাইবেন বলেও জাগো নিউজকে জানান পৌর মেয়র।

ইকবাল হোসেন মজনু/আরএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]