ড্রেনে পড়েছিলেন বৃদ্ধা, বাড়িতে পৌঁছে দিল পুলিশ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ১২:৩১ পিএম, ১৭ জুলাই ২০২১

পাবনা পৌর সদরে একটি ড্রেনে পড়েছিলেন ৭০ বছর বয়সী সখিনা বেগম।

শুক্রবার (১৬ জুলাই) রাত ১০টার দিকে এক পথচারী এ দৃশ্য দেখে ফোন করেন পাবনা পুলিশ সুপারকে (এসপি)। পরে পুলিশের একটি দল তাকে উদ্ধার করে বাড়ি পৌঁছে দেন।

পাবনার এসপি মহিবুল ইসলাম খান জানান, শুক্রবার রাতে শহরের রাধানগর মহল্লার একজন বাসিন্দা তাকে ফোন করেন। তিনি জানান, রাধানগর ইছামতি স্কুলের পাশে পৌরসভার ড্রেনে আহত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন এক বৃদ্ধা। খবর পেয়ে এসপি জেলা পুলিশ কন্ট্রোল রুমকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলেন।

এসপির নির্দেশনা পেয়ে পাবনা সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তারা বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে পুলিশের গাড়িতে তোলেন। প্রাথমিক সেবা শেষে পুলিশ তার কাছ থেকে বাড়ির ঠিকানা সংগ্রহ করেন। এ সময় বৃদ্ধা জানান, তার বাড়ি সদর উপজেলার দোগাছি ইউনিয়নের চর শিবরামপুর মহল্লায়। তার স্বামীর নাম কোমল সরদার ও তার এক ছেলের নাম আজাহার আলী (৩৫)। তিনি হোসিয়ারি শ্রমিক।

পরে বৃদ্ধার দেয়া তথ্য অনুযায়ী, তার ছেলেকে স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ খুঁজে বের করে। আজাহার আলী জানান, মাকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না। এভাবে মাকে পেয়ে খুশিতে আত্মহারা হয়ে পড়েন।

পুলিশের ডিউটি অফিসারের কক্ষে এসময় এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। বৃদ্ধা বলেন, ‘পুলিশ দেখে এতোদিন ভয় পেতাম। সেই পুলিশ এতো সদয় তা আজ বুঝতে পেরেছি।’

সবার উপস্থিতিতে আজাহার আলী মাকে নিয়ে বাড়ি ফেরেন। এ সময় আজাহার আলী বলেন, ‘পাবনার পুলিশ এতোটা মানবিক আচরণ করেছেন। এতোদিন এটি আমার কল্পনাতেও ছিল না। পুলিশ সুপারসহ সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’

পাবনার এসপি মহিবুল ইসলাম খান জানান, পুলিশ একটি মানবিক দায়িত্ব পালন করেছে। ‘পাবনা জেলা পুলিশ, জনসেবায় অহর্নিশ’- এ স্লোগান নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এ কাজের এটি একটি সফল উদাহরণ।

আমিন ইসলাম/এসএমএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]