তার ছিঁড়ে পুরো বাড়ি বিদ্যুতায়িত, মেহমানসহ দুইজনের মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ১২:৫৫ এএম, ২৩ জুলাই ২০২১ | আপডেট: ০১:৪১ এএম, ২৩ জুলাই ২০২১

বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে বাড়ির টিনের চালে পড়ে পুরো বাড়ি বিদ্যুতায়িত হয়ে মেহমানসহ দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ দক্ষিণ পাড়ার আব্দুল আমিনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আরও দুজন আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মৃতরা হলেন- আব্দুল আমিনের ছোট বোন রমিদা বেগম (২৮) ও ভাগিনা টেকনাফ সদর ইউনিয়নের হাবিরছরা এলাকার আব্দুল করিমের ছেলে কলিম উল্লাহ (২৪)। ঈদ উপলক্ষে মামার বাড়ি বেড়াতে এসে মৃত্যুর শিকার হন ভাগিনা।

এছাড়া আব্দুল আমিনের কিশোরী মেয়ে বকেয়াকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, রাত আটটার দিকে বিদ্যুতের মেইন তার ছিঁড়ে আব্দুল আমিনের বাড়ির টিনে পড়লে বিকট শব্দে পুরো বাড়িতে বিদ্যুতের স্পর্শ লেগে যায়। ওই সময় বাড়িতে অবস্থান করা সাত সদস্যের মধ্যে তিনজন দ্রুত বাইরে বেরিয়ে পড়েন। যে চারজন বের হতে পারেননি তাদের মাঝে ঘটনাস্থলে দুইজনের মৃত্যু হয়। বিদ্যুৎ বন্ধ হওয়ার পর বাকি দুজনকে আহতাবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয়।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. টিটু চন্দ্র শীল জানান, বিদ্যুৎ স্পর্শে ১২ বছরের কিশোরী বকেয়ার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তার পা পুড়ে গেছে।

কক্সবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির টেকনাফ জোনাল অফিসের ডিজিএম আবুল বাশার জানান, বাতাসে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার পর আমরা বিদ্যুৎ বন্ধ রাখি। ঘটনাস্থলে লোক পাঠানো হয়েছে।

শাহপরীর দ্বীপ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই যায়েদ হাসান জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্টের ঘটনায় দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আহত দুইজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করা হয়েছে।

সায়ীদ আলমগীর/জেডএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]