পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা : ঘটনাস্থলে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের টিম

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মুন্সিগঞ্জ
প্রকাশিত: ১১:৪১ পিএম, ২৪ জুলাই ২০২১

পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারে ফেরির ধাক্কার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের একটি টিম।

শনিবার (২৪ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে রো রো ফেরি শাহ পরানে চড়ে মন্ত্রী পরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী ঘটনাস্থলে যায় পরিদর্শন টিম।

এসময় তাদের সঙ্গে ছিলেন সেতু কর্তৃপক্ষসহ বিআইডব্লিউটিসি ও নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

পরিদর্শন শেষে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘পদ্মা সেতুর নিচ দিয়ে ফেরি চালানোর সময় যেসব নির্দেশনা রয়েছে, সেগুলো চালকসহ ফেরি সংশ্লিষ্টরা মেনে চলছে কি-না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যদি না মানা হয়ে থাকে, কেন মানছেন না তারা অথবা নির্দেশনা মানার ক্ষেত্রে কী ধরনের ব্যত্যয় ঘটছে, সে সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা পাওয়ার জন্যই আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসেছি।’

পরিদর্শনকালে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএ-এর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক ও বিআইডব্লিউটিসি-এর পরিচালক (অর্থ) শাহীনুর রহমান ভূঁইয়া, এজিএম (মেরিন) আহম্মেদ আলী, এজিএম (ইঞ্জিনিয়ারিং) রুবেলুজ্জামান ও পদ্মা সেতু বিভাগের সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে, দুর্ঘটনা কবলিত ঘটনাস্থল ছাড়াও শনিবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত দিনভর মুন্সিগঞ্জ লৌহজং ও শরিয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে পদ্মা সেতুর কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন টিমের সদস্যরা। পদ্মা সেতুর কাজে নিয়োজিত প্রকৌশলীরা জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল পৌনে ১০টার দিকে পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারে মাদারীপুরের বাংলাবাজার ঘাট থেকে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে আসার পথে রো রো ফেরি শাহ জালালের ধাক্কা লাগে। এতে ফেরির ২০ যাত্রী আহত হন।

দুর্ঘটনার পরে সঠিকভাবে ফেরি পরিচালনায় ব্যর্থ হওয়ার অভিযোগে দুপুরে বিআইডাব্লিউটিসি থেকে এক আদেশে ফেরির মাস্টার আব্দুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

এছাড়া ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। আগামী তিন দিনের মধ্যে কমিটিকে বিআইডাব্লিউটিসির চেয়ারম্যানের কাছে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

আরাফাত রায়হান সাকিব/এএএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]