কুমিল্লায় মালিকের ঝুলন্ত, কর্মচারীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুমিল্লা
প্রকাশিত: ০৩:১০ পিএম, ২৭ জুলাই ২০২১

কুমিল্লার লালমাইতে একটি বসতঘর থেকে মালিকের ঝুলন্ত ও কর্মচারীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) বিকেল সোয়া ৫টার দিকে উপজেলার বেলঘর উত্তর ইউনিয়নের ইছাপুরা গ্রাম থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহতরা হলেন- বেলঘর উত্তর ইউনিয়নের ইছাপুরা গ্রামের হাসানুজ্জামানের ছেলে স্থানীয় মুদি ব্যবসায়ী হায়াতুন্নবী শরিফ (২৮) ও তার দোকানের কর্মচারী একই গ্রামের আবুল হাশেমের ছেলে ফয়েজ আহমেদ (২৭)।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে লালমাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আইয়ুব বলেন, ‘শরীফুল ইসলাম কয়েক বছর ধরে নিজ বাড়ির সামনে মুদি দোকানের ব্যবসা করে আসছেন। পাশাপাশি তার একটি গরুর ফার্মও রয়েছে। ফার্ম ও দোকানের কর্মচারী হিসেবে কাজ করেন একই গ্রামের ফয়েজ আহমেদ। ঈদুল আজহাতে শরীফ দশ লক্ষাধিক টাকার গরু বিক্রি করেছেন। সোমবার (২৬ জুলাই) রাতে শরীফ দোকান বন্ধ করে ফয়েজসহ বাড়িতে এসে ঘুমিয়ে পড়েন। সেদিন বাড়িতে আর কেউ ছিল না।’

ওসি আরও বলেন, ‘মঙ্গলবার বেলা ১১টায় শরীফের বাবা বাড়িতে এসে ঘরের দরজা বন্ধ দেখে ডাকাডাকি করেন। কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে দুজনের মরদেহ দেখতে পান। এ সময় তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন এসে থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে পাই শরীফের মরদেহ ঘরের সিলিংয়ের (বাঁশ) সঙ্গে ঝুলছে। আর কর্মচারী ফয়েজের মরদেহ খাটের ওপর পড়ে রয়েছে। ফয়েজের গলায় জখমের চিহ্ন রয়েছে এবং নাক ও মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘তদন্তকারী সংস্থা সিআইডি ও পিবিআইকে খবর দেয়া হয়। তারা ঘটনাস্থলে এসে প্রাথমিক তদন্ত শেষে বিকেল সোয়া ৫টার দিকে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে এবং তদন্তকারী দুই সংস্থার তদন্ত শেষে সাংবাদিকদের হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে জানানো হবে।’

বেলঘর উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের মজুমদার বলেন, ‘শরীফ অত্যন্ত ভালো ছেলে। গ্রামের সবাই তাকে পছন্দ করতো। গরুর বিক্রির টাকার জন্যই হয়তো দু’জনকে হত্যা করা হয়েছে। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’

জাহিদ পাটোয়ারী/আরএইচ/এসজে/এএসএম/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]ail.com