নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় শিশু নিহত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৪:১০ এএম, ২৯ জুলাই ২০২১
প্রতীকী ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় যাত্রীবাহী মাইক্রোবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কায় ইভা (৮) নামে এক শিশু নিহত হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় অন্তত ১৩ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার (২৮ জুলাই) দিবাগত রাত ১টার দিকে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের খাড়েরায় পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ইভা নেত্রকোনা জেলার আটপাড়ার মোবারকপুরের ইব্রাহীম মিয়ার মেয়ে। এ ঘটনায় ইভার বাবা-মাও আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে পারুল (২৮), রীনা (২৭), তাহমিনা (৩২), নিহত ইভার মা ইয়াছমিন (২৮), তরিকুল, সিরাজ, রাজেশ ও শারমিনকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

নিহত ইভার বাবা ইব্রাহীমসহ আরও কয়েকজনকে কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য ককমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়। আহতদের সবার বাড়ি নেত্রকোনায় বলে জানা গেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, নেত্রকোনা থেকে একটি মাইক্রোবাস চট্টগ্রামে যাচ্ছিল। মাইক্রোবাসের যাত্রীরা সবাই চট্টগ্রামের পোশাক কারখানার কর্মী। ঈদের ছুটি কাটিয়ে তারা চট্টগ্রামে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে মাইক্রোবাসের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে থাকা একটি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ধাক্কা দিলে অন্তত ১৪ জন আহত হয়।

তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় থানা পুলিশ। সেখানে শিশু ইভাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। পরে আহতদের মধ্যে গুরুতর আহতদের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সোলায়মান মিয়া জানান, হাসপাতালে আনার আগেই ওই শিশুর মৃত্যু হয়। আহত অন্যদের সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ইয়াছমিন নামে এক নারীর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর ভূঞা জানান, খবর পেয়ে কসবা থানা পুলিশ হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। নিহত শিশুর মরদেহ জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

আবুল হাসনাত মো. রাফি/এএএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]