কলেজে ফেরা হলো না চয়নের

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি কালীগঞ্জ (গাজীপুর)
প্রকাশিত: ০২:৪৭ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর খুলেছে স্কুল-কলেজ। কিন্তু কলেজে ফেরা হলো না গাজীপুরের সরকারি কালীগঞ্জ শ্রমিক কলেজের শিক্ষার্থী চয়ন চন্দের। মাত্র ১৮ বছর বয়সে কিডনির সমস্যায় নিভে গেছে তার জীবনের আলো।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ভোরে নিজ বাড়িতে মারা যান চয়ন চন্দ। সরকারি কালীগঞ্জ শ্রমিক কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন চয়ন। ২০১৯ সালে তুমিলিয়া বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন।

চয়নের বড় ভাই আকাশ চন্দ কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘দীর্ঘদিন থেকেই কিডনির সমস্যায় ভুগছিল চয়ন। ডাক্তারের অধীনে নিয়মিত চলছিল তার ডায়ালাইসিস। অনেকটা সুস্থের পথে ছিল। কিন্তু গত দুদিন ভীষণ জ্বর ছিল। ভোরে আমাদের সবাইকে ছেড়ে চলে গেছে আমার ভাই।’

চয়নের মৃত্যুতে পুরো এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া। কোনোভাবেই চয়নের মৃত্যু মেনে নিতে পারছে না বন্ধুরা।

তুমিলিয়া বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. কামরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি চয়নের শ্রেণি শিক্ষক ছিলাম। ছেলেটা ভীষণ বিনয়ী আর মেধাবী ছিল। কিন্তু সময় আজ পাথর হয়ে গেছে। সব কথা ব্যথার মালা হয়ে আমার এ শূন্য হৃদয়ে আর্তনাদ করছে। চয়ন যেখানেই থাকুক ভালো থাকুক।

চয়নের বন্ধু রানা সরকার বলেন, ‘একই সঙ্গে একই সেকশনে আমরা পড়াশোনা করেছি। ভীষণ চুপচাপ আর ভদ্র ছেলে ছিল চয়ন। তার অকাল মৃত্যু মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে।’

জানা যায়, পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনে ছিল চয়নের দক্ষ নেতৃত্ব। চুয়ারিয়াখোলা স্বপ্নসিঁড়ি নবোদিত সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

সংগঠনের সভাপতি রাইয়ান রাহাত বলেন, সংগঠনের এক নিবেদিত প্রাণ ছিল চয়ন। আমরা এক মেধাবী সংগঠককে হারিয়েছি।

আব্দুর রহমান আরমান/এফআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]