ঠাকুরগাঁওয়ে কনস্টেবলের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁও
প্রকাশিত: ০৩:০৭ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

ঠাকুরগাঁওয়ে কিশোরীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগে জুয়েল রানা (২৪) নামে এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ মামলায় আরও দুজনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে ২২ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁও আদালতে মামলাটি করেন। অভিযুক্ত জুয়েল ময়মনসিংহ মুক্তাগাছা থানায় কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত আছেন বলে জানা গেছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, পুলিশ কনস্টেবল জুয়েল রানা প্রায় সময় রাস্তাঘাটে ওই কিশোরীকে উত্ত্যক্ত করতেন। কখনো প্রেমের প্রস্তাব ও কখনো বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কু-প্রস্তাবও দিতেন। এতে রাজি না হওয়ায় কিশোরীকে অপহরণের পর ধর্ষণ করেন জুয়েল।

বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় মাতব্বররা সমাধানের চেষ্টা করেন। জুয়েলের বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক অঙ্গিকার নামাতে স্বাক্ষর করে বিয়ের কথা বললেও পরে মোটা অঙ্কের যৌতুক দাবি করেন। কিশোরীর পরিবার সচ্ছল না হওয়ায় এ প্রস্তাবে রাখতে অপারগতা প্রকাশ করে। পরে যৌতুক দিতে না পারায় বিয়ে বন্ধ হয়ে যায়। কোনো উপায় না পেয়ে ভুক্তভোগী কিশোরর বাবা স্থানীয়দের পরামর্শে আদালতের শরণাপন্ন হন।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত জুয়েল রানা বাসায় গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। বাসার সদস্যরা জানান চাকরি সুবাদে জুয়েল বাইরে আছেন। কিন্তু কোথায় আছেন এবং তার সঙ্গে যোগাযোগ করার কোনো মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়নি।

পরে জুলের বাবার মোবাইল ফোনে কল করা হলে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভীরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। খুব শিগগিরই দোষীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তানভীর হাসান তানু/এসজে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]