ভাসমান রেস্তোরাঁয় আগুন, পুড়ে মরলো ২৮ ছাগল

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ০৪:২১ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০২১

নওগাঁয় আগুন লেগে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে একটি ভাসমান রেস্তোরাঁ। পাশের একটি খামারে আগুন ছড়িয়ে পড়ায় পুড়ে গেছে ২৮টি ছাগল।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে সদর উপজেলার তালতলি বিলে এ আগুন লাগার ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালে সদর উপজেলার দুবলহাটি সড়কের তালতলি বিলে বাঁশ-কাঠ ও টিন দিয়ে একটি ভাসমান রেস্তোরা তৈরি করেন চকপ্রাণ মহল্লার বাসিন্দা এরশাদ আলী। শহর থেকে দূরে হওয়ায় সেখানে আশপাশে আর কোনো দোকানপাট বা বাড়িঘর নেই। রেস্তোরাঁর পাশাপাশি একটি কক্ষে ২৮টি ছাগলও ছিল তার।

বুধবার ভোর সাড়ে ৫টায় ভাসমান ওই রেস্তোরাঁয় আগুন লাগে। খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস। তবে তার আগেই সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

jagonews24

রেস্তোরাঁ মালিক এরশাদ আলী বলেন, ‘প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) রাত ১১টার দিকে রেস্তোরাঁয় কয়েল জ্বালিয়ে দিয়ে বাড়ি চলে আসি। ভোর ৬টার দিকে ফোনে আমাকে জানানো হয় সেখানে আগুন লেগেছে। আগুনে সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আমার প্রায় ৬ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।’

কেই শত্রুতা করে তার রেস্তোরাঁয় আগুন দিয়েছে সন্দেহ করে তিনি আরও বলেন, ‘কয়েল থেকে যদি আগুন লাগবে তাহলে রাতেই লাগতো, সকালে কেন? শত্রুতা করে কেউ পেট্রল ছিটিয়ে আগুন লাগিয়ে দিতে পারে।’

নওগাঁ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। রেস্তোরাঁ মালিক এরশাদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তাকে থানায় অভিযোগ করতে বলা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হবে বলেও জানান তিনি।

নওগাঁ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক এ কে এম মুরশেদ জানান, ওই রেস্তোরাঁটি বাঁশ ও কাঠ দিয়ে দিয়ে তৈরি করা হয়েছিল। কিভাবে আগুনের সূত্রপাত হয় তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

আব্বাস আলী/ এফআরএম/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]