বিয়ের দুই মাস না যেতেই নববধূর মৃত্যু, স্বামী আটক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি বগুড়া
প্রকাশিত: ০৯:১৩ পিএম, ১৫ অক্টোবর ২০২১

বগুড়ার ধুনটে স্বামীর বাড়ি থেকে রেহেনা খাতুন (১৮) নামের এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে তার মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। এ সময় রেহেনার স্বামী আলিফ হাসানকে (২২) আটক করে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুই মাস আগে উপজেলার রাঙ্গামাটি গ্রামের মুঞ্জুরুল আকন্দের ছেলে আলিফ হাসানের সঙ্গে শেরপুর উপজেলার সুঘাট গ্রামের রেজাউল করিমের মেয়ে রেহেনা খাতুনের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর সুখেই কাটছিল নবদম্পতির জীবন।

বৃহস্পতিবার রাতে স্বামী-স্ত্রী ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। শুক্রবার ভোরে রেহানা খাতুনকে স্বামীর বিছানায় মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। সংবাদ পেয়ে পুলিশ শুক্রবার দুপুরের দিকে রেহেনার মরদেহ উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে আলিফ হাসান বলেন, রেহেনা খাতুন পেটের ব্যথার কথা বলে রাতে ঘুম থেকে ওঠে। এ সময় তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেওয়ার প্রস্তুতিকালে ঘরেই রেহানা মারা গেছে। তাকে হত্যা করার অভিযোগ সঠিক নয়।

মৃত রেহেনার বাবা রেজাউল করিম অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়ের মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। তবে মেয়ের মরদেহের গলায় আঘাতের চিহ্ন আছে। তাই ধারণা করা হচ্ছে আমার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

ধুনট থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জাহিদুল হক জাগো নিউজকে বলেন, নিহত রেহেনার গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মৃত গৃহবধূর স্বামী আলিফ হাসানকে আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন ছাড়া মৃত্যুর কারণ বলা সম্ভব হচ্ছে না।

এসজে

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]