হিলিতে চারদিনের ব্যবধানে অর্ধেকে নেমেছে কাঁচামরিচের দাম

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি বিরামপুর(দিনাজপুর)
প্রকাশিত: ০১:৫৫ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০২১

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে গত ১১ অক্টোবর থেকে বন্ধ রয়েছে কাঁচামরিচ আমদানি। তারপরও হিলি বাজারে কাঁচামরিচের দাম বাড়ার পরিবর্তে কমেছে। আড়তদারদের দাবি, বাজারে চাহিদার তুলনায় দেশীয় কাঁচামরিচের সরবরাহ বেশি থাকায় দাম কমতে শুরু করেছে।

হিলি বাজারের বেশ কয়েকটি আড়ত ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি আড়তে পর্যাপ্ত পরিমাণের কাঁচামরিচ রয়েছে। আর কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি দরে। যা গত কয়েক দিন আগে বিক্রয় হয়েছে ১১০-১২০ টাকা কেজি দরে। বগুড়া, নওগাঁ থেকে নিয়মিত সরবরাহ থাকায় দাম কমেছে বলে দাবি করেন আড়তদাররা।

জানা যায়, হিলির আড়তগুলোতে কাঁচামরিচ ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৭৫-৮০ টাকা কেজি দরে।

jagonews24

আরিফুল ইসলাম নামের এক ক্রেতা জাগো নিউজকে জানান, পূজার আগে হিলি বন্দর দিয়ে কাঁচামরিচ আমদানি স্বাভাবিক থাকার পরেও দাম চড়া ছিল। এখন আমদানি বন্ধ। তারপরও দেশীয় কাঁচামরিচ সরবরাহ থাকায় দাম কিছুটা কমেছে। বন্দর দিয়ে আমদানি হলে বাজারে কাঁচা মরিচের দাম আরও কমবে বলে মনে করেন তিনি।

বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী শাকিল হোসেন বলেন, ‘কিছু দিন আগে দেশের বিভিন্ন জায়গায় অতিবৃষ্টির কারণে মরিচের আবাদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এখন বগুড়া এবং নওগাঁ এলাকা থেকে চাহিদার চেয়েও বেশি কাঁচামরিচ বাজারে সরবরাহ হচ্ছে। তাই কাঁচামরিচের দাম কমতে শুরু করেছে। আমরা আড়ত থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে কিনছি আর বাজারে খুচরা ৭৫-৮০ টাকায় বিক্রি করছি।’

এফআরএম/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]