হোটেল থেকে নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, সাবেক স্বামী আটক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি বাগেরহাট
প্রকাশিত: ০৬:২৫ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০২১

বাগেরহাটে আবাসিক হোটেল থেকে মোসা. নাজমা বেগম নামে এক নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই নারীর সাবেক স্বামী রবিউল ইসলাম রুবেলকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে শহরের রাহাতের মোড় এলাকার বিলাস হোটেল থেকে ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) বিকেলে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ওই হোটেলে ওঠেন তারা। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নাজমা বেগম ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা উপজেলার ত্রিবেণী দক্ষিণপাড়া এলাকার ওলীদ মিয়ার মেয়ে। তিনি সাভার এলাকার একটি গার্মেন্টসে চাকরি করতেন। আটক রবিউল ইসলাম রুবেল একই উপজেলার চতুরা গ্রামের মো. শহিদুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আটক রুবেল জানান, ২০১৫ সালে ঝিনাইদহ পলিটেকনিকে পড়ার সময় তার সঙ্গে সখ্য গড়ে ওঠে ১১ বছরের বড় স্বামী পরিত্যক্তা নাজমা বেগমের। একই বছর ২ মে একটি বাড়িতে আটকে রুবেলের সঙ্গে নাসিমাকে বিয়ে দেয় তার পরিবার। পরে রুবেল নাজমাকে নিয়ে তার বাড়িতে আসেন। কিন্তু ২০১৬ সালে রুবেলের পরিবার থেকে চলে যান তিনি। পরে রুবেলের নামে অত্যাচার-নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামলাও করেন নাজমা। এরপর থেকে দুজনের যোগাযোগ বন্ধ ছিল। এর মধ্যে রুবেল আবারও বিয়ে করেন। কিন্তু এক বছর থেকে নাজমা এবং রুবেলের মধ্যে আবারো মোবাইল ফোনে যোগাযোগ এবং দেখা সাক্ষাৎ হতো।

হোটেল থেকে নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, সাবেক স্বামী আটক

বিলাস হোটেলের ম্যানেজার মো. হুমায়ুন বলেন, ‘রুবেল এবং নাজমা এর আগেও আমাদের হোটেলে থেকেছে। তারা স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে আমাদের হোটেলে থেকেছে। এর থেকে বেশিকিছু আমি জানি না।’

বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম আজিজুল ইসলাম জানান, হোটেল বিলাসের একটি কক্ষ থেকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় নাজমার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তার সঙ্গে থাকা যুবক রবিউল ইসলাম রুবেলকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হোটেলের ম্যানেজারকেও থানায় আনা হয়েছে। মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবারের লোক খবর দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি।

শওকত আলী বাবু/এফআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]