এক রাতে ৪ গরু চুরি, ওসি বললেন চুরি-ডাকাতি কোন জায়গায় হচ্ছে না?

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মৌলভীবাজার
প্রকাশিত: ০৫:২২ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০২১
ফাইল ছবি

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের হালগরা এলাকা থেকে একরাতে তিন পরিবারের চারটি গরু চুরি হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) ভোরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এলাকার গফুর মিয়ার দুটি, মারুফ আহমেদের একটি ও নুনই মিয়ার একটি গরু চুরি হয়েছে।

চুরির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোয়ালবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন আহমেদ লেমন।

চুরি হওয়া গরুর মালিক গফুর মিয়া বলেন, রাত ১০টার দিকে গোয়ালঘরে তালা দিয়ে ঘুমাতে যাই। সকালে উঠে দেখি গোয়ালঘর খোলা। আমার গরু নেই। পাশের বাড়ির মারুফ আহমেদের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটেছে। উনারও একটি গাভি চুরি হয়।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সম্প্রতি গরু চোরদের উপদ্রব বেড়েছে। গোয়ালঘরে তালা দিয়েও গরু রক্ষা করা যাচ্ছে না। চুরি বেড়ে যাওয়ায় অনেকেই গরু-মহিষ পালন বাদ দিয়েছেন। বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান ও পুলিশকে জানানো হয়েছে।

গোয়ালবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন আহমেদ লেমন বলেন, খবর পেয়ে আমি সকালে তাদের বাড়িতে গিয়েছি। যাদের নাম সন্দেহ তাদের নাম থানায় জানাতে বলেছি।

তিনি বলেন, আমরা আগেও অনেক চোর ধরেছি। তাদের থানায় দিয়েছি। তবে পরবর্তী সময়ে দেখা যায় তারা জামিনে বেরিয়ে এসে আবার গরু চুরি করছেন।

জানতে চাইলে জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সঞ্জয় চক্রবর্তী বলেন, আমাদের কাছে এখনো কেউ এ বিষয়ে অভিযোগ করেনি। আমরা তৎপর রয়েছি। অনেকদিন পর চুরি হইছে। একটা গরু চুরি হইলে যদি এতো হুলুস্থুল শুরু হয়ে যায়! চুরি-ডাকাতি কোন জায়গায় হচ্ছে না?

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) সাদেক কাউসার দস্তগীর বলেন, গত কয়েক মাসে ২৬ চোরকে ধরে আমরা আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছি। আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আব্দুল আজিজ/এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]