‘ফ্রিডম পার্টির নেতা’ পেলেন নৌকার মনোনয়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৪:১৭ পিএম, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১

বগুড়ার আদমদীঘিতে ছাতিয়ানগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পেয়েছেন ফ্রিডম পার্টির নেতা আব্দুল হক আবু। তাকে মনোনয়ন দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা। তার মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন আওয়ামী লীগ নেতা হাফিজুল ইসলাম বেলাল।

মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় উপজেলার সান্তাহার শহর প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম বুলবুল, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি রশিদুল ইসলাম রশিদ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ নেতা হাফিজুল ইসলাম বেলাল লিখিত বক্তব্যে বলেন, পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়নপ্রাপ্ত আব্দুল হক আবু ফ্রিডম পার্টির একজন চিহ্নিত নেতা। ১৯৮৭-৮৮ সালের দিকে আদমদীঘিতে ফ্রিডম পার্টিকে সুসংগঠিত করতে নিজ বাড়িতে কার্যালয় বানিয়ে পার্টির উপজেলা সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব নেন তিনি। তার নেতৃত্বে ফ্রিডম পার্টির সান্তাহার ও নওগাঁর নেতাকর্মীরা যৌথভাবে তৎকালীন সান্তাহার কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে (চম্পা-পান্না) হত্যার উদ্দেশ্যে সশস্ত্র অভিযান পরিচালনা করেন। সেসময় ফ্রিডম পার্টির সঙ্গে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ব্যাপক সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে ঘটনাস্থল থেকে ফ্রিডম পার্টির নেতাকর্মীরা পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। সেই ক্ষোভে তখন ছাত্রলীগ নেতারা আব্দুল হক আবুর বাড়িতে অবস্থিত ফ্রিডম পার্টির কার্যালয় ভাঙচুর করেন।

আওয়ামী লীগের এ নেতা আরও বলেন, দল বদল করে ১৯৯৪ সালে জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন আবু। পরে ছাতিয়ানগ্রাম ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে ২০১৬ সালের ২৮ মে সান্তাহার পৌর শহরের হার্ভে স্কুল মোড় এলাকায় আওয়ামী লীগে যোগ দেন।

jagonews24

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া আব্দুল হক আবু বলেন, আমি নৌকার মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচিত হয়ে পাঁচ বছর ইউপি চেয়ারম্যান ছিলাম। সে কারণে আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি মহল এসব অপপ্রচার চালাচ্ছেন। তিনি আরও বলেন, ‘আমি কোনোদিনই ফ্রিডম পার্টির সঙ্গে জড়িত ছিলাম না। তবে হ্যাঁ, জাতীয় পার্টি করতাম।’

সান্তাহার পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলী বলেন, ফ্রিডম পার্টি করা নেতাদের যেখানে দলে যোগদান করানো নিষেধ সেখানে তাকে কিভাবে মনোনয়ন দেওয়া হয় আমার বোধগম্য নয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল ইসলাম চম্পা বলেন, ‘আব্দুল হক আবু ফ্রিডম পার্টির সেক্রেটারি ছিলেন। মনোনয়ন বোর্ড তাকে মনোনীত করেছে, আমরা কী করবো? আমি নিজে ৩৯ বছর ধরে রাজনীতি করি। সান্তাহার ইউপিতে মনোনয়ন চেয়েছিলাম, পাইনি। সেখানে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে সম্প্রতি দলে আসা এক নেত্রীকে।’

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে আদমদীঘি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম খান রাজুর সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

পঞ্চম ধাপে আগামী ৫ জানুয়ারি বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার ছাতিয়ানগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]