অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ ছাড়াই চলছে ঈশ্বরদী সরকারি কলেজ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ১১:৪৩ এএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২২

পাবনার ঈশ্বরদী সরকারি কলেজে গত এক মাস ধরে অধ্যক্ষ নেই। এতে স্থবির হয়ে পড়েছে প্রতিষ্ঠানটির প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম। এছাড়া কলেজে উপাধ্যক্ষ এবং ১৬ জন শিক্ষকের পদও শূন্য রয়েছে। এতে একাডেমিক কাজ মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে। কলেজটিতে দ্রুত অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ এবং শূন্য পদসমূহে শিক্ষক নিয়োগের দাবি জানিয়েছেন কর্মরত শিক্ষকরা।

কলেজ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ২১ জুলাই অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুর রহিম বদলি হয়ে যান। এরপর উপাধ্যক্ষ প্রফেসর জাকিরুল হক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনিও গত ২১ ডিসেম্বর চাকরি থেকে তিনি অবসরে যান। এরপর পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হাফিজা খাতুনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি সরাসরি অধ্যক্ষ না হওয়ায় তিনি আয়ন-ব্যয়ন ক্ষমতা পাননি। এতে বিঘ্নিত হচ্ছে কলেজের প্রশাসনিক কাজকর্ম।

উল্লেখ্য, ১৯৬৩ সালে প্রতিষ্ঠিত এই কলেজে বর্তমানে উচ্চ মাধ্যমিক, ডিগ্রি ও ১২টি বিভাগে অনার্সসহ প্রায় আট হাজার ছাত্রছাত্রী রয়েছে। পাশাপাশি মাস্টার্স কোর্স চালু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। কলেজে শিক্ষকের পদ ৫৮টি। এর মধ্যে দীর্ঘদিন থেকে অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ পদসহ ১৬টি পদই শূন্য।

অধ্যক্ষ না থাকায় কলেজে ২৫ জন মাস্টাররোলে বিভিন্ন বিভাগে দাপ্তরিক কাজে নিয়োজিত থাকা কর্মচারী ও ১২ জন অতিথি শিক্ষককে বেতন দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। একই কারণে কলেজের প্রশাসনিক কাজসহ একাডেমিক শিক্ষা কার্যক্রমও ব্যাহত হচ্ছে।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের পদে থাকা কলেজের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক হাফিজা খাতুন জানান, তার হাতে আর্থিক ক্ষমতা নেই। এতে প্রশাসনিক কাজ করতে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। আপাতত অধ্যক্ষর পদটি পূরণ হলেই সমস্যার দ্রুত সমাধান হবে।

আমিন ইসলাম জুয়েল/এফএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]