হবিগঞ্জে চিতা বিড়াল হত্যায় শতাধিক ব্যক্তির নামে মামলা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি হবিগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৩:৫৬ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২২
চিতা বিড়াল হত্যা করে চামড়া নিয়ে উল্লাস করছেন এক যুবক

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে থামছে না বন্যপ্রাণী হত্যা। বাঘ মনে করে এবার একটি চিতা বিড়ালকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শতাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করেছে বন বিভাগ।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) রাতে চুনারুঘাট থানায় মামলাটি করা হয়। এর আগে হত্যা করা হয় একটি শেয়াল।

বনবিভাগ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার কচুয়া গ্রামের পাশে একটি ঝোপে কয়েকজন চিতা বিড়ালটিকে দেখতে পান। এটিকে বাঘের বাচ্চা বলে এলাকায় প্রচার করেন অনেকে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে ধাওয়া করে বিড়ালটি। একপর্যায়ে বিড়ালটিকে পিটিয়ে হত্যার পর তারা উল্লাস করেন। খবর পেয়ে বন বিভাগের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যান।

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিম চৌধুরী জানান, অনেকে এটিকে মেছো বিড়ালও নামেও ডাকেন। কিন্তু এর প্রকৃত নাম হচ্ছে ‘চিতা বিড়াল’। বিরল প্রজাতির প্রাণীটি এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে। হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও সিলেট অঞ্চলে কিছুসংখ্যক চিতা বিড়ালের দেখা মিলে। এটি কখনো মানুষকে আক্রমণ করে না।

তিনি আরও জানান, এর আগে ৯ জানুয়ারি তারা একটি শেয়ালকে পিটিয়ে হত্যা করেন। ১৩ জানুয়ারি তারা বিরল প্রজাতির একটি গন্ধগোকুলকে ধরে নিয়ে আসেন। পরে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে সেটিকে উদ্ধার করি। চিতা বিড়াল হত্যার ঘটনায় ছয়জনের নাম উল্লেখ করে শতাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সিদ্ধার্থ ভৌমিক বলেন, যেহেতু স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়েই বন্যপ্রাণী ধরছে এবং মারছে সেক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে মাইকিং করা হবে।

সৈয়দ এখলাছুর রহমান খোকন/আরএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]