‘নির্বাচিত হলে শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখবো’ বলছেন আব্দুল হাই

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুড়িগ্রাম
প্রকাশিত: ১০:০১ পিএম, ২৪ জানুয়ারি ২০২২

ষষ্ঠ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন আগামী ৩১ জানুয়ারি। ওইদিন কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী সদর ইউনিয়নেও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জমে উঠেছে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী বেশিরভাগ প্রার্থীই টাকা দিয়ে লোক নিয়োগ করে মাইক দিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন। তবে ব্যতিক্রম সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই মাস্টার।

নির্বাচন সামনে অটোরিকশায় করে নিজেই নিজের প্রচারণা চালাচ্ছেন তিনি। তার প্রতীক হচ্ছে মোটরসাইকেল। উৎসুক ভোটাররা রাস্তায় দাঁড়িয়ে দেখছেন তার মাইকিং।

মাইকিংয়ে ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল হাই মাস্টার বলছেন, ‘সদর ইউপি চেয়ারম্যান পদে আমাকে ভোট দিন। আমি নির্বাচিত হলে আগের মতো শহরের ড্রেন ও রাস্তাঘাট পরিষ্কার করবো। শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখবো।’

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে হেরে যাওয়ার জাকের পার্টির প্রার্থী হিসেবে জাতীয় সংসদ সদস্য পদে নির্বাচন করেন আব্দুল হাই। এর আগে একাধিকবার জাতীয় সংসদ, উপজেলা পরিষদ এবং ইউপি নির্বাচন করেছেন পেশায় শিক্ষক আব্দুল হাই। তিনি উপজেলার চরভূরুঙ্গামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। স্থানীয়রা তাকে ‘ভোট পাগল’ বলেই চেনেন।

একবার উপজেলার বঙ্গসোনাহাট ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন আব্দুল হাই। পরে ২০০৯ সালে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এসময় তার নির্বাচনী প্রচারণায় স্থানীয় সাধারণ ভোটাররা টাকা, চাল, মুড়িসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র দিয়ে সহযোগিতা করেছিলেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর ড্রেন ও রাস্তাঘাট পরিষ্কারে বেশিরভাগ সময় ব্যয় করতেন আব্দুল হাই মাস্টার। তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান থাকাকালীন বাংলাদেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদিতে তাকে নিয়ে একটি প্রামানণ্য অনুষ্ঠানও প্রচারিত হয়। তাই আগের মতো এবারও তার নির্বাচনী প্রচারের মূল হাতিয়ার হচ্ছে আগের কৃতকর্মের ফিরিস্তি।

আব্দুল হাই মাস্টার বলেন, ‘ভূরুঙ্গামারী সদর ইউনিয়নের মতো গুরত্বপূর্ণ ইউনিয়নের উন্নয়নের জন্য পরিশ্রমী, ত্যাগী ও যোগ্য প্রার্থী দরকার। আমি এ ইউনিয়নের সেবা এবং শহর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার উদ্দেশ্যে ভোট প্রার্থনা করছি। খরচ বাঁচাতে নিজেই মাইকিং করছি।’

মাসুদ রানা/এসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]