মৃত্যুদণ্ডের পলাতক আসামি গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৫:২১ পিএম, ২৯ জানুয়ারি ২০২২
আদালতে পুলিশি নিরাপত্তায় মৃত্যুদণ্ডের আসামি হুমায়ুন হাসান

ফেনীর ফুলগাজীতে সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালককে হত্যা ও ডাকাতি মামলায় মৃত্যুদণ্ডের আদেশপ্রাপ্ত আসামি হুমায়ুন হাসান রাকিবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। রাকিব লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার শায়েস্তানগর গ্রামের আবুল কালাম সুলতানের ছেলে।

এর আগে শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) রাতে রায়পুরের বর্ডার বাজার এলাকা থেকে রাকিবকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সূত্র জানায়, ২০১০ সনের ১৯ নভেম্বর ফুলগাজী উপজেলার ধলিয়া সড়কে দুর্বৃত্তরা চালককে হত্যা করে সিএনজিচালিত অটোরিকশা নিয়ে যায়। এ ঘটনায় নিহতের আত্মীয় পরশুরাম উপজেলার পূর্ব সাহেবনগর গ্রামের ফখরুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে গ্রেপ্তার হওয়া হুমায়ুন হাসান রাকিবকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। ওই মামলায় প্রায় সাড়ে আটবছর জেল খাটেন রাকিব। জামিনে বের হয়ে তিনি পলাতক ছিলেন।

সাক্ষ্য ও তথ্য প্রমাণের পর ফেনীর জেলা ও দায়রা জজ আদালত তার মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন। পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়।

রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিপন বড়ুয়া জাগো নিউজকে বলেন, ফুলগাজী থানার একটি ডাকাতি ও হত্যা মামলায় আদালত রাকিবের মৃত্যুদণ্ডের রায় দেন। এরপর তিনি দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইমদাদুল হক ও সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আতিকুর রহমান তাকে গ্রেফতার করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত হুমায়ুন কবির রাকিব থানায় সাংবাদিকদের জানান, তিনি নিরপরাধ। তাকে ফাঁসানো হয়েছে। এ মামলায় তিনি সাড়ে আটবছর কারাভোগ করে আদালত থেকে জামিনে ছিলেন। কবে মামলার রায় হয়েছে, তাও তিনি জানেন না। সংসারে তার স্ত্রী ও দেড় মাসের ছেলে সন্তান রয়েছে।

কাজল কায়েস/এসজে/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]