চিলাহাটি রেলওয়ের আইকনিক ভবনের নির্মাণকাজ বন্ধ, মরিচা ধরছে রডে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নীলফামারী
প্রকাশিত: ০৬:২৪ পিএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২
এক বছর ধরে ভবনটির কাজ বন্ধ থাকায় পিলারের উন্মুক্ত রডগুলাতে মরিচা ধরেছে

অজ্ঞাত কারণে বন্ধ রয়েছে নীলফামারীর চিলাহাটি রেলওয়ে স্টেশনের আন্তর্জাতিকমানের আইকনিক ভবনের নির্মাণকাজ। গত এক বছর ধরে ভবনটির কাজ বন্ধ থাকায় পিলারের উন্মুক্ত রডগুলাতে মরিচা ধরেছে। এগুলো জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে।

২০১৯ সালের ২১ সেপ্টেম্বর ম্যাক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান প্রকল্পের কাজটি শুরু করে। নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ৬৮ কোটি ৭০ লাখ টাকা। তবে ভবনের ১৭৫টি পাইলিং শেষে ৯২টি পিলারের পাইল ক্যাপ স্থাপন করার পর থেকে বন্ধ রয়েছে নির্মাণকাজ।

Rail-(3).jpg

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের সময় নীলফামারীর চিলাহাটী থেকে ভারতের হলদিবাড়ী পর্যন্ত ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকে রেলপথটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে দুই দেশের সরকার। দীর্ঘ ৫৬ বছর বন্ধ থাকার পর ২০২১ সালের ২৭ মার্চ বাংলাদেশ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী এক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পুনরায় রেলপথ চালুর ঘোষণা দেন।

উদ্বোধনের পর থেকে এ রেলপথে পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল করছে। পাশাপাশি খুব শিগগির এ রেলপথে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল করবে বলে জানা গেছে।

Rail-(3).jpg

সম্প্রতি চিলাহাটীতে একটি আন্তর্জাতিকমানের আইকনিক রেলওয়ে স্টেশন ভবন নির্মাণকাজ শুরু করেছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। এরই মধ্যে রেলওয়ে ব্রিজ, লেভেল ক্রসিং, রেস্ট হাউজ, টিএক্সআর ভবন, গ্যাংহাটসহ অন্যান্য সহায়ক কাজ শতভাগ শেষ হয়েছে। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে থমকে আছে আন্তর্জাতিকমানের আইকনিক স্টেশন ভবন নির্মাণের কাজ। প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নতুন করে জমা দেওয়া ডিপিপি (উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা) অনুমোদন হলেই দ্রুত কাজ শুরু করা হবে।

Rail-(3).jpg

ডোমার উপজেলার ভোগডাবুরী ইউনিয়নের সিরাজুল ইসলাম বলেন, প্রায় এক বছর ধরে নির্মাণকাজ বন্ধ রয়েছে। কী কারণে কাজটি বন্ধ রয়েছে আমরা জানি না। আমাদের দাবি, দ্রুত যেন ভবটির নির্মাণকাজ শুরু করা হয়।

একই এলাকার সানাউল ইসলাম বলেন, এলাকাবাসী আইকনিক ভবনের নির্মাণকাজ বন্ধের বিষয়ে জানতে চাইলে কোনো কথাই বলেন না কর্তৃপক্ষ কিংবা দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা।

Rail-(3).jpg

এ বিষয়ে সৈয়দপুর রেলওয়ের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) মো. আহসান উদ্দিন বলেন, আগে যে ডিপিপি করা হয়েছিল তাতে আইকনিক ভবনটি ছিল না। পরে আন্তর্জাতিকমানের স্টেশন ভবন নির্মাণের প্রস্তাব এলে নির্মাণ ব্যয় বেড়ে যায়ি। এজন্য রিভাইজ ডিপিপি করা হয়েছে। এটি অনুমোদন হলেই নির্মাণকাজ শুরু করা হবে।

এসআর/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।