স্কুল ছুটি দিয়ে শ্রেণিকক্ষেই কোচিং বাণিজ্য

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০৬:১১ পিএম, ১৯ মে ২০২২
নগরকান্দার শাকরাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

ফরিদপুরের নগরকান্দায় নির্ধারিত সময়ের আগেই স্কুল ছুটি দিয়ে শ্রেণিকক্ষে কোচিং বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ১৯নং শাকরাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঘটনাটি ঘটেছে।

উপজেলার লস্করদিয়া ইউনিয়নে বিদ্যালয়টি অবস্থিত। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নির্ধারিত সময় বিকেল ৪টার আগেই স্কুল ছুটি দিয়ে দেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কাজী মাহবুবুর রহমান।

বুধবার (১৮ মে) বিকেল ৩টার দিকে বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, নির্দিষ্ট সময়ের আগেই স্কুল ছুটি দেওয়া হয়েছে। আর মাত্র দুজন শিক্ষক বাদে সবাই স্কুল থেকে চলে গেছেন। এসময় শ্রেণিকক্ষেই কোচিং চালিয়ে যাচ্ছেন ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুজন কুমার রাহা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন অভিভাবক জাগো নিউজকে বলেন, শিক্ষকদের কাছে আমরা একধরনের জিম্মি হয়ে পড়েছি। পরীক্ষায় ভালো ফলাফলের জন্য বাধ্য হয়েই আলাদা প্রাইভেটে দিতে হচ্ছে।

নির্ধারিত সময়ের আগে ছুটি পেয়ে বাড়ি ফেরা শিক্ষার্থীরা জানান, কোচিংয়ের শিক্ষার্থীদের রেখে শিক্ষক মাহবুব তাদের বাড়ি চলে যেতে বলেছেন।

এ বিষয়ে শিক্ষক কাজী মাহবুবুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, আবহাওয়া প্রচণ্ড গরম তাই বাচ্চারা যার যার মতো করে চলে গেছে।

শ্রেণিকক্ষে কোচিং চালানো শিক্ষক সুজন কুমার রাহা জাগো নিউজকে বলেন, আমার ভুল হয়ে গেছে। এরপর থেকে আর শ্রেণিকক্ষে প্রাইভেট পড়াবো না।

এসময় প্রধান শিক্ষককে স্কুলে পাওয়া যায়নি। বক্তব্যের জন্য মোবাইল ফোনে কয়েকদফায় যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার আইরিন খানম জাগো নিউজকে বলেন, নির্দিষ্ট সময়ের আগে বিদ্যালয় ছুটি দেওয়া অন্যায়। আর শ্রেণিকক্ষে কোনোভাবেই কোচিং করানো যাবে না। আমি এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে দেখবো।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার কাজী রাশেদ মামুন জাগো নিউজকে বলেন, শ্রেণিকক্ষে কোচিং নিষিদ্ধ। তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এন কে বি নয়ন/এমআরআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]