সিরাজগঞ্জে গৃহকর্মীকে নির্যাতন, গৃহকর্ত্রী আটক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৯:১৯ পিএম, ২৭ মে ২০২২
প্রতীকী ছবি

সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার সয়াধানগড়া মধ্যপাড়া গ্রামে জুথি খাতুন নামে গৃহকর্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ। বসার কাজের মেয়ে মোছা. লিপি খাতুনকে নির্যাতনের অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছে।

আটক জুথি খাতুন সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার সয়াধানগড়া মধ্যপাড়া গ্রামের তারেক গোলামের স্ত্রী।

শুক্রবার (২৭ মে) বিকেলে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার সয়াধানগড়া মধ্যপাড়ার বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়।

জুথির প্রতিবেশি আনোয়ারা খাতুন জানায়, মৃত হযরত আলীর ছেলে মো. আলি আজাহারের (ব্যাংকার) বাসায় মোছা. লিপি খাতুন তিন বছর ধরে কাজ করছিল। চুন থেকে পান হলেই শিশুটিকে নির্যাতন করতো জুথি খাতুন। যে কাজ বয়স্ক মানুষকে দিয়ে করানো উচিত, তা চাপিয়ে দেওয়া হতো লিপির ওপর। শুক্রবার দুপুর থেকে মেয়েটিকে ব্যাপক মারধর করে আটকে রাখে। লিপি জানালা দিয়ে চিৎকার করে প্রতিবেশিদের ডাকতে থাকে। এলাকাবাসী বিষয়টি পুলিশকে জানালে তারা লিপিকে উদ্ধার করে।

লিপি খাতুন জানান, বিভিন্ন সময়ে লাঠি, গরম ইস্ত্রি দিয়ে ছ্যাক ও কিল ঘুষি মারা হতো। কাউকে কিছু বল্লে নানাভাবে হুমকি দিতো খালাআম্মা। আজ আমাকে অনেক মেরেছে।

ভুক্তভোগীর বড় বোন মোহসিনা সুমি বলেন, লিপির কোনো ভুল হলেই মারধর করতো। কয়েকদিন আগে তাকে টয়লেটে আটকে রেখে নির্যাতন করেছে। কিছু হলেই নির্যাতন করতো। পাশের বাড়িতে আমি কাজ করতাম। কিন্তু আমার সঙ্গে দেখা করতে দিত না। এলাকাবাসীর মুখে শুনতে পেরে এখানে এসেছি।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সাজ্জাদ হোসেন জানান, নির্যাতনের শিকার মেয়েটিকে উদ্ধার করে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে প্রথমিক চিকিৎসার দেওয়া হয়েছে। তার শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন পাওয়া গেছে। নির্যাতিত শিশুটির পরিবার থানায় অভিযোগ করেছে। গৃহকর্ত্রী জুথি খাতুনকে আটক করা হয়েছে।

এএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]