সিরাজগঞ্জে সন্ধ্যা হলেই অটোরিকশার ভাড়া দ্বিগুণ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৬:০৩ পিএম, ১৫ আগস্ট ২০২২

সন্ধ্যা হলেই সিরাজগঞ্জের আঞ্চলিক সড়কে চলাচলকারী সিএনজিচালিত অটোরিকশার যাত্রীদের দ্বিগুণ ভাড়া গুনতে হয়। যাত্রীদের অনেকটাই জিম্মি করে এ বাড়তি ভাড়া আদায় করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। জেলার কড্ডার মোড় থেকে বেলকুচি উপজেলায় চলাচলকারী বেশ কয়েকজন যাত্রী ও চালকের সঙ্গে কথা বলে এর সত্যতাও মিলেছে।

সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে কড্ডার মোড় এলাকায় মাহমুদউল্লাহ নামে এক অটোরিকশার যাত্রীর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, অফিস ছুটি। বাড়ি যেতে ঢাকা থেকে কড্ডার মোড়ে বাস থেকে নেমেছি। এখান থেকে সিএনজিতে বেলকুচি যাব। এখন দিন তাই আমাকে ভাড়া দিতে হবে ৩০ টাকা। কিন্তু রাত হলেই সেই বাড়া দিতে হতো ৬০ টাকা।

তিসি আরও বলেন, রাত হলে এখানকার সিএনজি ড্রাইভারদের সঙ্গে কথা বলায় যায় না। মাঝে মাঝে যখন ঢাকা থেকে ফিরতে হয় তখন কোনো কথা না বলে চুপ করে বাড়তি ভাড়া দিয়ে যেতে হয়।

CNG-3

আরেক যাত্রী রহমত আলী বলেন, দিনে সিএনজি ভাড়া ঠিক থাকলেও এই এলাকার সিএনজি চালকেরা সন্ধ্যা হলেই সিন্ডিকেট করে। দিনের ভাড়া ৩০ টাকা আর সন্ধ্যা হলে হয় ৬০ টাকা। আমরা যাত্রীরা তাদের কাছে জিম্মি। টাকার কথা চিন্তা না করে বাড়ি যাওয়ার কথা চিন্তা করে বেশি টাকা দিয়ে চলে যাই।

জানতে চাইলে অটোরিকশাচালক শামসুল হক বলেন, আমরা দিনের বেলায় যাত্রীদের কাছে ৩০ টাকা ভাড়া নিই। তবে রাতে একটু ভাড়া একটু বেশি নিয়ে থাকি। কারণ রাতের বেলা যাত্রী কম হয়। তাই একটু বেশি ভাড়া নিতে হয়, তা না হলে আমাদের পোষায় না।

আরেক চালক মনিরুল ইসলাম বলেন, রাতে কড্ডার মোড় থেকে বেলকুচির ভাড়া ৬০-৮০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। কারণ তখন যাত্রী থাকে কম। যাত্রী বোঝাই করে নিয়ে গিয়ে খালি গাড়ি নিয়ে ফিতে হয়। কম ভাড়া নিয়ে গিয়ে খালি গাড়ি নিয়ে ফিরলে আমাদের পোষাবে না। তাই রাতের ভাড়া একটু বেশি হয়।

এ বিষয়ে বেলকুচি উপজেলার সিএনজি স্ট্যান্ডের চেইন মাস্টার আশরাফুল হকের সঙ্গে কথা হলে তিনি মালিক সমিতির সঙ্গে কথা বলতে বলেন।

CNG-3

বেলকুচি-সিরাজগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের সিএনজি মালিক সমিতির সভাপতি রঞ্জু জাগো নিউজকে বলেন, আমাদের জেলায় ছয়টি সিএনজি মালিক সমিতি রয়েছে। আমার এরিয়া বেলকুচি, এনায়েতপুর, কড্ডার মোড় আঞ্চলিক সড়ক। তবে আমার সমিতির অধীনে যেসব সিএনজি রয়েছে তা দিনের বেলায় চলে বেশি। রাতের বেলায় চলে না বললেই চলে। জানা মতে, আমার কোনো ড্রাইভার যাত্রীদের কাছ থেকে বেশি ভাড়া নেয় না।

তিনি আরও বলেন, কড্ডার মোড় থেকে রাতে আরেক মালিক সমিতির গাড়ি বেশি চলে। তার সঙ্গে কথা বললে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিরাজগঞ্জ সিএনজি মালিক সমিতির আরেক শাখার সভাপতি ফিরোজ আহমেদ বলেন, রাতে যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া নেওয়ার বিষয়ে আমি জানতে পেরেছি। যাত্রীদের কাছে থেকে যেন ড্রাইভাররা বেশি ভাড়া না নেয় সে বিষয়ে চালক ও সিএনজি মালিকদের সঙ্গে বেশ কয়েকবার কথা বলেছি। তবুও কোনো কাজ হচ্ছে না।

এমআরআর/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।