ফরিদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচন: যুবলীগের সাবেক-বর্তমান ২ নেতার লড়াই

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০৯:৪৮ পিএম, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২
ফারুক হোসেন ও শাহাদাত হোসেন

ফরিদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে যুবলীগের সাবেক ও বর্তমান কেন্দ্রীয় দুই নেতার মধ্যে শুরু হয়েছে ভোটের লড়াই। জেলা পরিষদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. ফারুক হোসেন। অন্যদিকে, যুবলীগের বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির অর্থ-সম্পাদক সম্পাদক মো. শাহাদাত হোসেনও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এদিকে, জেলা পরিষদ নির্বাচনে যুবলীগের সাবেক ও বর্তমান দুই কেন্দ্রীয় নেতার মনোনয়ন দাখিল নিয়ে ফরিদপুরে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে নানা আলোচনা-সমালোচনা।

যুবলীগের সাবেক নেতা মো. ফারুক হোসেনের দাবি, দলের বাইরে গিয়ে যিনি মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন তিনি প্রকারান্তে শেখ হাসিনার বিপক্ষেই গিয়েছেন।

আর বর্তমান যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শাহাদাত হোসেনের ভাষ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে এবং ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিতেই তিনি প্রার্থী হয়েছেন। তিনি বলেন, বিগত দিনে জেলা পরিষদে কোনো ভোট হয়নি। এবার আমি ভোটের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। এই প্রথম ভোটাররা ভোট দিতে পারবেন বলে আশা রাখছি।

এদিকে, দলীয় প্রার্থীকে উপেক্ষা করে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে শাহাদাত হোসেন মনোনয়নপত্র দাখিল করায় তাকে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে বহিষ্কারের দাবি তুলেছেন অনেকেই।

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৭ অক্টোবর ফরিদপুর জেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। গত বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষদিনে চেয়ারম্যান পদে চারজন, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১২ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৪৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়াদের মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো. ফারুক হোসেন, স্বতন্ত্র মো. শাহাদাত হোসেন, অধ্যাপক আব্দুল আজিজ ও মো. নুর ইসলাম সিকদার রয়েছেন। এবারের নির্বাচনে ফরিদপুর জেলার ৯টি উপজেলা ও পাঁচটি পৌরসভার ১ হাজার ১৮১ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

এন কে বি নয়ন/এমআরআর/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।