ফেনীতে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, যুবকের যাবজ্জীবন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফেনী
প্রকাশিত: ০৭:১২ পিএম, ০৪ অক্টোবর ২০২২

ফেনীর ছাগলনাইয়ায় বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের দায়ে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) দুপুরে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ওসমান হায়দার আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত যুবকের নাম মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম ফরহাদ (৩০)। তিনি ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার পূর্ব বাঁশপাড়া মজুমদার বাড়ির মোহাম্মদ ইব্রাহিমের ছেলে। রায় ঘোষণার পর তাকে ফেনী জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আসামি কামরুল ইসলামের সঙ্গে একই এলাকার এক তরুণীর তিন বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ২০১৬ সালের ২২ আগস্ট সন্ধ্যায় বেড়ানোর কথা বলে কামরুল তার প্রেমিকাকে ফোন দেন এবং ছাগলনাইয়া উপজেলা সদরে যেতে বলেন। ওই তরুণীও সরল বিশ্বাসে বাড়ি থেকে বের হয়ে উপজেলা সদরে যান। এরপর তাকে একটি নম্বরবিহীন সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তুলে উপজেলার দক্ষিণ যশপুর এলাকায় জনৈক নুর আলম ভূঞার একটি নির্মাণাধীন বাড়ির ছাদে নিয়ে যান কামরুল।

সেখানে বিয়ের প্রলোভনে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করেন। পরদিন সকালে আবারও একটি নম্বরবিহীন অটোরিকশায় করে তাকে তুলে নিয়ে তাদের বাড়ির পাশে নামিয়ে দেন। তরুণী বিয়ের জন্য চাপ দিলে কামরুল অস্বীকার করেন। পরে ওই তরুণী বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানান। এরপর কামরুলকে ফোন দিলে তিনি রিসিভ করেননি। একপর্যায়ে ফোন বন্ধ করে দেন।

এ ঘটনায় ওই তরুণী ছাগলনাইয়া থানায় একটি মামলা করেন। মামলার তদন্ত শেষে ছাগলনাইয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) গোলাম মুর্শিদ সরকার আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। মামলায় বাদীসহ মোট ছয়জন সাক্ষীর সাক্ষ্য নেন আদালত।

ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) হাফেজ আহম্মদ রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আবদুল্লাহ আল-মামুন/এসআর/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।