টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনা

নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের ৩ জন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি টাঙ্গাইল
প্রকাশিত: ০৯:৩৮ পিএম, ০৬ অক্টোবর ২০২২

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত পাঁচজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এখনো একজনের পরিচয় শনাক্ত হয়নি। এদের মধ্যে একই পরিবারের তিনজন।

নিহতরা হলেন- কুষ্টিয়া ফার্টিলাইজারের বিএডিসি (সার) যুগ্ম-পরিচালক জহিরুল ইসলাম (৫০), বগুড়া সদরের জলসিঁড়ি তলার হেলাল উদ্দিনের ছেলে রিফাত আল হাসান (৩৫), রিফাতের মা মালেকা ভানু রুবি (৬৫), তার ছেলে সাজিদ হাসান (৭), কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার কুতুম্বপুর গ্রামের ফজলু মিয়ার ছেলে মাইক্রোবাস চালক দুলাল মিয়া (৪৮)। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অন্যজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একতা পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে মাইক্রোবাসের চালক, নারী ও শিশুসহ চার জন এবং যাত্রীবাহী বাসের দুজন নিহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে পাঁচজনকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা সবাই নাটোর জেলার বাসিন্দা। আহতরা হলেন- নাটোর সদর উপজেলার অর্জুনপুর গ্রামের পারভেজ (২৭), একই উপজেলার গৌরীপুর গ্রামের সিদ্দিক হোসেনের ছেলে জাকির হোসেন (৩০), একই এলাকার মাঠনগর গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মনিরুজ্জামান (২১), নলডাঙ্গা উপজেলার পীরগাছা গ্রামের বাবু মিয়ার ছেলে উৎসব (১৭) ও ওই এলাকার মালা বেগম (২৫)। এর মধ্যে মালা বেগমের মস্তিষ্কে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এ ঘটনায় নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে মরদেহ দাফনের জন্য দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক ডক্টর মো. আতাউল গনি। তিনি টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতদের দেখতে গিয়ে সবার চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। আহতদের চিকিৎসায় বাইরের ওষুধ বা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার খরচও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বহন করা হবে।

নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের ৩ জন

বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম জানান, চাপাইনবাবগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা একতা পরিবহনের একটি বাস বঙ্গবন্ধু সেতু পার হওয়ার পর নিয়ন্ত্রণ হারায়। বাসটি ঢাকাগামী লেন থেকে উল্টে উত্তরবঙ্গগামী লেনে গিয়ে একটি মাইক্রোবাসের (ঢাকা মেট্রো-চ-১৯-৩৫৯১) ওপর ওঠে পড়ে। এ ঘটনায় দুই গাড়ির ছয় যাত্রীর মৃত্যু হয়। এসময় অন্তত ২৫ যাত্রী আহত হন।

পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপ্রান্তের গোল চত্বর এলাকায় একটি যাত্রীবাহী বাস উল্টে বিপরীত লেনের একটি মাইক্রোবাসের ওপর গিয়ে পড়ে। এতে মাইক্রোবাসের চালক, নারী ও শিশুসহ চারজন এবং যাত্রীবাহী বাসের দুজন নিহত হয়েছে। তাদের মধ্যে ঘটনাস্থলে তিন জন ও হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও তিন জনের মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. মো. আতাউল গনি জানান, দুর্ঘটনার সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। নিহতের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। এছাড়া টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হওয়া আহতদের চিকিৎসা নিশ্চিত করা হয়েছে। চিকিৎসাধীন কারও ওষুধ লাগলে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কিনে দেওয়া হবে।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আরিফ উর রহমান টগর/আরএইচ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।