সোনারগাঁয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ৩০

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)
প্রকাশিত: ০৮:০৭ পিএম, ২৫ জানুয়ারি ২০২৩

রায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। বুধবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার এলাহী নগর ঈদগাহ মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ও আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের জন্য ১০ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করে উপজেলা আওয়ামী লীগ। বিকেলে কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করে শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ। এতে শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া।

বিশেষ অতিথি ছিলেন- সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ আবদুল্লাহ আল কায়সার, সিনিয়র সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম। এছাড়াও সম্মেলনে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্মেলনে আবু বকর সিদ্দিক মোল্লা তার স্বাগত বক্তব্যে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী নাসির উদ্দিনকে মনোনয়ন দেওয়া আওয়ামী লীগের ভুল সিদ্ধান্ত ছিল উল্লেখ করেন। ফলে গত নির্বাচনে এ ইউনিয়নের নৌকার ভরাডুবি হয়। এছাড়াও নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের বিরূপ মন্তব্য করলে নাসির উদ্দিন সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে চেয়ার ছোড়াছুড়ি শুরু হয়। পরে আবু বকর সিদ্দিক মোল্লার সমর্থকরা লাঠিসোটা নিয়ে নাসিরউদ্দিন সমর্থকদের ওপর হামলা করে। এসময় নাসিরউদ্দিন পক্ষের জান্নাত ব্যাপারী, সোহেল, আরিফ, আরমান, শরীফ, আল আমিন, রাজিম, নাজমুল ও শামীমসহ ২০ জন ও আবু বকর সিদ্দিক মোল্লার পক্ষের আনিছুর রহমান শামীম, নজরুল ইসলাম, বাবু মোল্লা, জাহাঙ্গীর, মিন্টু, সুজন, মোয়াজ্জেম, শহীদ ও বাবলুসহ ১০ জন আহত হন।

শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রার্থী নাসিরউদ্দিন বলেন, তিনি কর্মী সম্মেলনে প্রায় দুই হাজার নেতাকর্মী নিয়ে অংশ নেন। এ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লা আমাকে নিয়ে উষ্কানীমূলক বক্তব্য দেয়। এসময় নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এসময় উভয় পক্ষের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়।

শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক মোল্লা বলেন, এ ইউনিয়নের নৌকার পরাজয়ের কারণ তুলে ধরার সঙ্গে সঙ্গে নাসিরউদ্দিনের নেতাকর্মীরা চেয়ার ছুড়াছুড়ি শুরু করে। এ নিয়েই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে আমার সমর্থকরাও আহত হয়েছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত বলেন, সংঘর্ষের কারণে তাৎক্ষণিক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কর্মী সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে।

সোনারগাঁও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আহসানউল্লাহ বলেন, কর্মী সম্মেলনে পুলিশ মোতায়েন ছিল। সংঘর্ষের কারণে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি। পরে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

রাশেদুল ইসলাম রাজু/আরএইচ/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।