৫ বছরে বস্ত্র খাতের স্থান দখল করবে পাট শিল্প


প্রকাশিত: ০৮:৩০ এএম, ১১ মার্চ ২০১৭

বস্ত্র খাতে ৩০ বছরে যে অর্জন সাধিত হয়েছে আগামী ৫ বছরে পাট খাত সে জায়গা দখল করবে বলে মন্তব্য করেছেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম।

শনিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ) আয়োজিত ‘অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে পাট খাতের সম্ভাবনা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ইআরএফ সভাপতি সাইফুল ইসলাম দিলাল। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন- সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) গবেষণা পরিচালক গোলাম মোয়াজ্জেম, ইআরএফ সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম আরো বলেন, পাটের সম্ভাবনা বিশাল ও অফুরন্ত। এ খাতের অফুরন্ত সম্ভাবনা কাজে লাগিয়ে পাটের হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ইতোমধ্যে পাট আইন-২০১৭ পাসসহ বেশ কিছু পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। পাটের উন্নয়নে সরকার সব ধরনের সহায়তা দেবে।

মির্জা আজম বলেন, বাংলাদেশ পাট কল করপোরেশনের (বিজেএমসি) প্রতিবছর লোকসান হয় ৫০০ থেকে ৬০০ কোটি টাকা। একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে লোকসান হতেই পারে। তবে বিজেএমসির লোকসানের অন্যতম কারণ এ প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতি।

মির্জা আজম বলেন, বিশ্ব ব্যাংকের আর্থিক সহায়তা আদমজি জুটমিলস বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। অথচ সেই সময়ই বিশ্বব্যাংক ভারতে আর্থিক সহায়তা দিয়ে ১০টি পাটকল স্থাপন করে। সুতরাং এটা স্পস্ট যে বাংলাদেশের পাট শিল্প নিয়ে আন্তর্জাতি ষড়যন্ত্র হয়েছিল। তবে বর্তমান সরকার সেসব ষড়যন্ত্র থেকে পাট শিল্পকে পুনরুদ্ধার করার সব ধরনের কাজ করে যাচ্ছে।

এমইউএইচ/এনএফ/এমএস