এক ছাদের নিচে সমবায় অধিদফতরের সব পণ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৬ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ১২:৫১ এএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৮
এক ছাদের নিচে সমবায় অধিদফতরের সব পণ্য

এবারের বাণিজ্য মেলায় ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে বাহারি দেশীয় পণ্যের পসরা সাজিয়েছে সমবায় অধিদফতর। মেলায় প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করে একটু বামে এগোলেই আরএমপি-৬এ প্যাভিলিয়ন। এখানে সমবায় অধিদফতরের অধীন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সমবায় সমিতিগুলোর উৎপাদিত পণ্য বিক্রি ও প্রদর্শন হচ্ছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, সমিতিগুলোর পণ্য ক্রেতা-দর্শনার্থীদের নিকট তুলে ধরতে এ আয়োজন। প্যাভিলিয়নে পাওয়া যাচ্ছে চামড়ার তৈরি বিভিন্ন পণ্য। এছাড়া অর্গানিক, শতরঞ্জি, মৃৎশিল্প, হস্ত ও কুটির শিল্প, বেনারশিসহ নানা পণ্য পাওয়া যাচ্ছে এখানে।

jagonews24

রংপুর সমবায় সমিতি লিমিটেডের ‘চারুশী শতরঞ্জি অ্যান্ড ক্রাফটস’র বিক্রয় প্রতিনিধি তাদের পণ্যের পসরা নিয়ে বসে আছেন। সেখানে ২০০ থেকে ৫৪০ টাকার মধ্যে শতরঞ্জি পাওয়া যাচ্ছে। ব্যাগ পাওয়া যাচ্ছে ২০০ থেকে ৭০০ টাকায়। এছাড়া বিভিন্ন দামের ছোট-বড় নানা পণ্য পাওয়া যাচ্ছে। মেলা উপলক্ষে এসব পণ্যে ১০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

এরপরই রয়েছে ঠাকুরগাঁও মহিলা সমবায় সমিতি লিমিটেডের ‘চন্দ্রমল্লিকা’র স্টল। বিক্রয় প্রতিনিধিরা জানান, এখানে ৬৫০ থেকে শুরু করে ২৫০০ টাকার বিভিন্ন ধরনের ওয়ান পিস, টু-পিস ও থ্রি-পিস রয়েছে। শাড়ি পাওয়া যাচ্ছে ২২০০ থেকে ৫৫০০ টাকার মধ্যে। বেডশিট ১৫০০ থেকে ৩৫০০ টাকার মধ্যে।

jagonews24

নড়াইলের উজিরপুর অর্গানিক বহুমুখী সমবায় সমিতির তৈরি ‘শুদ্ধ পণ্য’ও এখানে পাওয়া যাচ্ছে। ঢেঁকিছাঁটা লাল চাল, ঢেঁকিছাঁটা চালের গুঁড়া, হাতে ভাজা মুড়ি, খৈ ও চিড়া, দেশি লাল গমের আটা, দেশি কালো সরিষার তেল, সূর্যমুখী বীজের তেল, খাঁটি নারকেল তেল, কালোজিরার তেল, দেশি ও ভেজালমুক্ত খেজুর ও আখের গুড় এবং পাটালি গুড় রাখা আছে এখানে।

প্যাভিলিয়নটিতে রয়েছে মৃৎশিল্পের বিভিন্ন পণ্য, রয়েছে ২৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকা মূল্যের বেনারশি শাড়ি; চামড়াজাত পণ্যের মধ্যে রয়েছে জুতা, স্যান্ডেল, মানিব্যাগ, হাতব্যাগ ও বেল্ট।

jagonews24

প্যাভিলিয়নে দায়িত্বরত সমবায় অধিদফতরের কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন, এ প্যাভিলিয়নের সব পণ্য দেশীয়। সমবায় অধিদফতরের অধীনে স্থানীয় সমবায় সমিতির মাধ্যমে এগুলো উৎপাদিত। এসব পণ্যে কোনো ধরনের ঝামেলা নেই। তাই চাহিদা খুব বেশি। মেলায় তাদের পণ্যের দর্শকপ্রিয়তাও বেশ। বেচাবিক্রিও ভালো হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এমইউএইচ/এমএএস/এমএআর/বিএ/আরআইপি