সেলফিময় বাণিজ্য মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৫৬ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৮:৫৮ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৮
সেলফিময় বাণিজ্য মেলা

‘চল বেটা সেলফি লে লে রে’- বজরঙ্গি ভাইজানের বিখ্যাত গানটির কথা সবারই জানা। এর প্রভাব পড়েছে এবারের ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায়ও। সুযোগ পেলেই পকেট থেকে স্মার্টফোন বের করেই ‘হয়ে যাক সেলফি’। সঙ্গে সঙ্গে তা আপলোড হয়ে যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ব্যস… এরপর লাইকসহ কমেন্টের ধুম।

সেলফির জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়ে চলেছে। কিন্তু একদল গবেষক জানিয়েছেন, সেলফি তোলার হিড়িক একপ্রকার পাগলামির লক্ষণ। যারা সেলফি তোলায় মজে থাকে, তাদের নাকি ডাক্তারের কাছে যাওয়া উচিত!

তবে কে শোনে কার কথা। আপাতত ভালো লাগাকেই প্রাধান্য দিয়ে চলতে পছন্দ বর্তমান যুগের তরুণ-তরুণীরা। তাই তো এবারের বাণিজ্য মেলায় বিভিন্ন বিনোদনমূলক স্থানে একাকি বা বন্ধু-বান্ধব বা সপরিবারে সেলফি তোলার হিড়িক লেগে আছে।

মানুষের এ সেলফি তোলার দুর্বলতাকে লুফে নিয়েছে কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানগুলো। এবারের বাণিজ্য মেলায় অংশগ্রহণ করা বেশকিছু প্রতিষ্ঠান তাদের প্যাভিলিয়নের নির্দিষ্ট স্থানে সেলফি তুলে তাদের পেজে ট্যাগ করলেই দিচ্ছে নানা উপহার।

এবারের মেলায় এমন-ই এক অফার নিয়ে এসেছে দেশের অন্যতম প্রশাধনী ব্র্যান্ড ‘কিউট’। কিউট প্যাভিলিয়নের সেলফি স্পটে সেলফি তুলে ফেসবুকে আপ করলেই থাকছে টেলিভিশন সেলিব্রেটি হওয়ার সুযোগ।

jagonews24

এ বিষয়ে কিউটের কর্পোরেট সেলস এক্সিকিউটিভ মো. আহসানুল ইসলাম বলেন, এবারের মেলায় তাদের বাড়তি আকর্ষণ হচ্ছে- কোনো দর্শনার্থী প্যাভিলিয়নের সেলফি স্পটে ছবি তুলে কিউট বাংলাদেশের ফেসবুক পেজে পোস্ট করলে পাচ্ছেন টিভি সেলিব্রেটি হওয়ার সুযোগ। প্রতি সপ্তাহে সেলফি পোস্টকারীদের মধ্যে একজন বিজয়ী নির্বাচিত হবেন। কিউটের পক্ষ থেকে তাকে দেয়া হবে আকর্ষণীয় উপহার।

এছাড়া মেলা শেষে প্রতি সপ্তাহের বিজয়ীরা জিটিভিতে প্রচারিত হওয়া জনপ্রিয় গেম শো ‘কিউট আজকের অনন্যা’য় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন।

এদিকে, ফ্রুটিকা আম রাজ্যে সেলফি তুলে প্রতি ঘণ্টায় আকর্ষণীয় পুরস্কার জেতার সুযোগ রয়েছে। ফ্রুটিকার প্রিমিয়াম প্যাভিলিয়ন-২৯ এর ফ্রুটিকা আম রাজ্যে সেলফি তুলে আপলোড করতে হবে এএফবিএল’র ইভেন্ট পেজে। এরপর লাইক ও শেয়ারের ভিত্তিতে সেলফি আপলোডকারীদের পুরস্কার দেয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফ্রুটিকার ব্র্যান্ড প্রোমোটর নাদির উদ্দিন রিজভি বলেন, ক্রেতাদের বাড়তি আনন্দ দিতে এ ধরনের আয়োজন করা হয়েছে। ক্রেতাদের ভোলো রেসপন্স পাওয়া যাচ্ছে। অনেকে খুব উৎসাহ নিয়ে সেলফি তুলে তাদের পেজে আপলোড করছেন।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের প্রক্রিয়া সম্পর্কে তিনি বলেন, ফ্রুটিকা প্যাভিলিয়নের গা ঘেঁষে তৈরি হয়েছে ফ্রুটিকা আম রাজ্য। এ রাজ্যে যে কেউ সেলফি তুলে এএফবিএল’র ইভেন্ট পেজ এএফবিএল- বাণিজ্য মেলা ২০১৮ এ আপলোড করলেই হবে। প্রতি ঘণ্টায় আপলোড করা ছবি লাইক ও শেয়ারের ওপর ভিত্তি করে একজনকে পুরস্কৃত করা হবে।

পুরস্কারের মধ্যে রয়েছে আকর্ষণীয় টি-শার্ট ও ফ্রুটিকা পণ্য। তিনি আরও জানান, প্রতি ঘণ্টায় বিজয়ীর নাম ঘোষণা হচ্ছে। এছাড়া বিজয়ীর ফেসবুক আইডিতে ম্যাসেজ দিয়ে বিষয়টি জানিয়ে দেয়া হচ্ছে। এভাবেই পণ্যের প্রসার ও ক্রেতা আকর্ষণে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।

এমইউএইচ/এমএআর/বিএ/আরআইপি