ডিএসইতে ৮০০ কোটি টাকার লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:১৫ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৮

প্রায় দেড় মাস পর সোমবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) আবারও ৮০০ কোটি টাকার ওপরে লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে এই গতি ফেরার দিনে ডিএসই এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) মূল্যসূচকও বেড়েছে। তবে কমেছে লেনদেন হওয়া বেশি সংখ্যক প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম।

এদিন ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১২৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ১৫৭টি। আর ৫২টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমার পরও ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ২৫৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২১৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় দশমিক শূন্য ৩ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৫৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

দিনভর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৮০৩ কোটি ৫ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৫৫৬ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। সে হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ২৪৬ কোটি ৫১ লাখ টাকা। সেই সঙ্গে গত ১০ অক্টোবরের পর বাজারটিতে আবারও ৮০০ কোটি টাকার ওপরে লেনদেন হয়েছে।

টাকার অঙ্কে এদিন ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে সায়হাম টেক্সটাইলের শেয়ার। কোম্পানিটির ৫৩ কোটি ৬৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইনটেক লিমিটেডের ৪৩ কোটি ২৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ২৪ কোটি ১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- কাট্টালি টেক্সটাইল, সায়হাম কটন, খুলনা পাওয়ার, মুন্নু সিরামিক, ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যাল, বিবিএস কেবলস এবং এসকে ট্রিমস।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ৭ পয়েন্ট বেড়ে ৯ হাজার ৭৮১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩১ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৪১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৯৬টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১১৮টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টির।

এমএএস/জেডএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :