মেলায় জমজমাট শিশু ও নারীদের স্টল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:১৬ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৯

জমে উঠেছে ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। শুক্রবার ও শনিবার পর পর দুইদিন সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় দর্শনার্থীদের ঢল নামে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত বাণিজ্য মেলার মাঠে। তবে আজ (সোমবার) গত দুইদিনের (শুক্র-শনিবারের) মতো ক্রেতা- দর্শনার্থীদের ঢল না থাকলেও মেলার প্রথমদিকের তুলনায় বেশ বেড়েছে।

দর্শনার্থী বাড়ার পাশাপাশি মেলায় অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর বিক্রিও বেশ বেড়েছে। ফলে কর্মব্যস্ততা বেড়েছে স্টলে দায়িত্বরত বিক্রয়কর্মীদের। তবে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের তুলনায় শিশু ও নারী সামগ্রীর স্টলগুলোতে ক্রেতাদের ভিড় একটু বেশিই দেখা গেছে।

এদিকে মেলায় কী পরিমাণ শিশু ও নারী সামগ্রীর স্টল আছে তার নির্দিষ্ট কোনো সংখ্যা পাওয়া যায়নি। তবে বড় বড় প্যাভিলিয়ন থেকে শুরু করে ছোট ছোট স্টলগুলোতেও শিশু ও নারীদের সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে। এসব সামগ্রী বিক্রির জন্য দেশীয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান যেমন রয়েছে, তেমনি বিদেশি প্রতিষ্ঠানও রয়েছে।

মেলার প্রধান গেট দিয়ে প্রবেশ করে উত্তর পাশ ধরে পূর্বদিকে কিছু দূর এগিয়ে গেলে চোখে পড়বে ঝুমকা জুয়েলারি নামে একটি স্টল। সেখানে নারীদের বিভিন্ন জুয়েলারি সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে। বাণিজ্য মেলার প্রথম থেকেই স্টলটিতে নারীদের বেশ আনাগোনা দেখা গেছে।

সেখানে কথা হয় জুয়েল নামে এক বিক্রয়কর্মীর সঙ্গে। তিনি বলেন, মেলার প্রথম থেকেই আমাদের বিক্রি বেশ ভালো। তবে এ পর্যন্ত সব থেকে বেশি বিক্রি হয়েছে গত শুক্রবার ও শনিবার। ওই দু'দিন ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ভিড় সামাল দিতে আমাদের হিমশিম খেতে হয়েছে।

ditf2

এই বিক্রয়কর্মী আরও বলেন, আমাদের কাছে নারীদের সব ধরনের জুয়েলারি আছে। এগুলোর ডিজাইন যেমন সুন্দর, মানও বেশ ভালো। দামও ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে। এ করণে রুচিশীল নারীরা সহজেই আমাদের জুয়েলারি সামগ্রী পছন্দ করেছেন।

মেলার প্রধান গেট দিয়ে প্রবেশ করে একটু পশ্চিম দিকে গেলেই চোখে পড়বে থাই প্যাভিলিয়ন। এই প্যাভিলিয়নে থাকা সিংভাগ স্টলেই শিশু ও নারীদের সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে। মেলার প্রথম কয়েকদিন এই প্যাভিলিয়নে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের তেমন সমাগম দেখা যায়নি।তবে শুক্রবার থেকে চিত্র পাল্টাতে শুরু করেছে। শুক্র ও শনিবার প্যাভিলিয়নটিতে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড় দেখা যায়। সোমবারও ক্রেতা-দর্শনার্থীদের আনাগোনা দেখা গেছে। প্যাভিলিয়নের বিভিন্ন স্টলে নারীদের সাজসজ্জার সামগ্রী বেশি বিক্রি হচ্ছে বলে জানান বিক্রেতারা।

মো. জামাল নামের এক বিক্রয় কর্মী জানান, তাদের স্টলে নারীদের সাজসজ্জার বিভিন্ন পণ্যের পাশাপাশি হ্যান্ডব্যাগ রয়েছে। শিশুদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন ধরণের খেলনা।সব পণ্য থাইল্যান্ড থেকে আনা। এ জন্য দাম তুলনামূলক একটু বেশি।

মেলার দক্ষিণ দিকে শিশু ও নারী সামগ্রীর স্টল দিয়ে বসেছেন জাহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, মেলার প্রথম দিন থেকেই আমরা বিক্রি শুরু করেছি। তবে প্রথম কয়েকদিন ক্রেতা তেমন ছিল না। শুক্রবার ও শনিবার যথেষ্ট ভালো বিক্রি করেছি। আমাদের স্টলে শিশু খেলনা ও নারীদের সাজসজ্জার প্রায় সব পণ্যই আছে। এখন পর্যন্ত নারীদের পণ্যই বেশি বিক্রি হয়েছে। আমাদের প্রত্যাশা মেলার দিন যত গড়াবে বিক্রি ততো ভালো হবে।

বাণিজ্য মেলার প্রধান গেট দিয়ে প্রবেশ করে উত্তরদিক ঘেঁষে পূর্বদিকে অগ্রসর হলে দেখা মিলবে যে কোনো পণ্য ১৫০ টাকা বিক্রির ‘মা ইন্টারন্যাশনাল’ নামের একটি স্টল।স্টলটিতে কথা হয় বিক্রয়কর্মী মো. শরিফের সঙ্গে। তিনি বলেন, আমাদের স্টলে খেলনা গাড়ি, ট্রেন, বিল্ডিং, পিস্তলের পাশাপাশি রান্না করার ফ্রাইপেন, কারিকুকার, পিঠা বানানোর সাচ, পানির বোতলসহ বিভিন্ন রান্না করার সামগ্রী পাওয়া যাবে। এর সঙ্গে আছে দেয়াল ঘড়িসহ ঘর সাজানোর বিভিন্ন শোপিস।

ditf3

তিনি বলেন, মেলার প্রথম থেকেই আমাদের বিক্রি মোটামুটি ভালো। তবে সব থেকে বেশি বিক্রি হচ্ছে শিশু খেলনা। আমরা যেসব শিশু খেলনা ১৫০ টাকায় বিক্রি করছি, এসব খেলনা বাহির থেকে কিনতে গেলে ২০০ টাকার ওপরে খরচ হবে।

মেলা থেকে খেলনা ও জুয়েলারি সামগ্রী কেনা নাদিরা নামের একজন বলেন, আমার এক ছেলে এক মেয়ে। মেয়ে নবম শ্রেণিতে পড়ে। ছেলে এখনও স্কুলে ভর্তি হয়নি। মেয়ের জন্য কিছু জুয়েলারি কিনেছি, আর ছেলের জন্য খেলনা। তবে নিজের জন্য কিছু কেনা হয়নি। মেলা থেকে ছেলে-মেয়েকে কিছু কিনে দিতে পেরেছি -এতেই আমার সুখ। ওদের মুখে হাসি থাকলে আমার আর কিছু লাগে না।

এমএএস/এমএমজেড/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :