সূচকের সঙ্গে বাড়ল লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩০ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২০

দরপতনের পরের কার্যদিবসেই ঊর্ধ্বমুখীতার দেখা পেয়েছে দেশের শেয়ারবাজার। বুধবার (২২ জানুয়ারি) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্য সূচক বেড়েছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ।

এর আগে টানা তিন কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর মঙ্গলবার দুই বাজারেই সূচকের পতন হয়। সেই সঙ্গে কমে লেনদেনের পরিমাণ। বিনিয়োগকারীদের বিক্রির চাপে এই দরপতন হয় বলে অভিমত শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টদের।

তবে বুধবার লেনদেনের শুরুতেই শেয়ারবাজারে ঊর্ধ্বমুখীতার আভাস পাওয়া যায়। মাঝে একবার সূচক নিম্নমুখী হলেও শেষদিকে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ে। ফলে সূচকেও ইতিবাচক প্রভাব পড়ে।

দিনভর ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৮৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১২৬টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৭টির।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার ফলে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ৩২ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ৪৪০ পয়েন্টে উঠে এসেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচক ১২ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৫১৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক ১০ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ১৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

সূচকের সঙ্গে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার পাশাপাশি ডিএসইতে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ। দিনভর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৩৮ কোটি ৪২ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ৪০৬ কোটি ৮০ লাখ। সে হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ৩১ কোটি ৬২ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে লাফার্জাহোলসিমের শেয়ার। কোম্পানিটির ২৭ কোটি ৭১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা খুলনা পাওয়ারের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১৫ কোটি ৮৫ লাখ টাকার। ১৫ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস।

এছাড়া লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে রয়েছে-প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ, কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজ, এসকে ট্রিমস, এসএস স্টিল, এডিএন টেলিকম এবং পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্স।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১০৯ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৫৩৪ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি ৭১ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেয়া ২৪২ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ১৩৩টির, কমেছে ৮৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টির।

এমএএস/এসআর/এমএস