১৩ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের আজ দাম কমার সুযোগ নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:০৪ এএম, ১০ আগস্ট ২০২০
ফাইল ছবি

প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তালিকাভুক্ত ১৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের আজ সোমবার দাম কমার সুযোগ নেই। এর মধ্যে তিনটি মিউচ্যুয়াল ফান্ড এবং ১০টি কোম্পানি রয়েছে।

নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্ধারণ করে দেয়া ফ্লোর প্রাইসের (দাম কমার সর্বনিম্ন সীমা) কারণে এই প্রতিষ্ঠানগুলোর দাম কমতে পারবে না। তবে দাম বাড়তে পারবে।

ফ্লোর প্রাইস থাকার মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে রয়েছে- ডিবিএইচ প্রথম, আইএফআইসি প্রথম ও ট্রাস্ট ব্যাংক প্রথম।

আর ফ্লোর প্রাইসে থাকা ১০ কোম্পানির শেয়ারগুলো হলো- অ্যাপেক্স ফুডস, অ্যাপেক্স ট্যানারি, বিডি সার্ভিসেস, ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স, কহিনূর কেমিক্যাল, সি পার্ল রিসোর্ট, এসকে ট্রিমস, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক্স, এশিয়ান ইন্স্যুরেন্স ও ন্যাশনাল ব্যাংক।

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাংলাদেশে শুরু হয় গত ৮ মার্চ। ওইদিন বাংলাদেশে প্রথম তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য প্রকাশ পায়।

এর প্রভাবে ৯ মার্চ শেয়ারবাজারে ভয়াবহ ধস নামে। ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স একদিনে রেকর্ড ২৭৯ পয়েন্ট পড়ে যায়। এরপর দফায় দফায় দরপতন হতে থাকে। পরিস্থিতি সামাল দিতে ১৯ মার্চ থেকে শেয়ারবাজারে লেনদেনের সময় এক ঘণ্টা কমিয়ে আনা হয়।

এরপরও পতন ঠেকানো না গেলে প্রতিটি কোম্পানির শেয়ারের ফ্লোর প্রাইস (দামের সর্বনিম্ন সীমা) নির্ধারণ করে দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন। এর মাধ্যমে শেয়ার বাজারের পতন কিছুটা হলেও থামানো যায়।

এক পর্যায়ে করোনাভাইরাসের প্রকোপ সামাল দিতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এতে ২৬ মার্চ থেকে ৩০ মে পর্যন্ত টানা ৬৬ দিন বন্ধ থাকে শেয়ারবাজারের লেনদেন।

এর মধ্যেই নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) নতুন চেয়ারম্যান ও কমিশনার নিয়োগ দেয়া হয়।

নতুন কমিশন দায়িত্ব নিয়ে শেয়ারবাজারে সুশাসন প্রতিষ্ঠার ওপর জোর দেয়া। কয়েকটি দুর্বল প্রতিষ্ঠানের প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) বাতিল করে দেয়া হয়। সেই সঙ্গে অনিয়মের কারণে বেশকিছু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়।

যার ইতিবাচক প্রভাব পড়ে শেয়ারবাজারে। বিনিয়োগকারীদের মধ্যে হারানো আস্থা ফিরে আসার ইঙ্গিত পাওয়া যায়। ফলে প্রায় দেড় মাস ধরে উর্ধ্বমুখী ধারায় রয়েছে শেয়ারবাজার। এতে তালিকাভুক্ত প্রায় সব প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে।

এর মধ্যে গতকাল রোববার শেয়ারবাজারে সাম্প্রতিক সময়ের মধ্যে সব থেকে বড় উত্থান হয়েছে। এই উত্থানের পর ১৩টি বাদে সবকটি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম ফ্লোর প্রাইসের উপরে উঠে এসেছে।

এমএএস/এনএফ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]