শেয়ারবাজারে ‘পচা’ কোম্পানির মহাদাপট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩২ পিএম, ১৪ আগস্ট ২০২০

দীর্ঘ মন্দা কাটিয়ে ঊর্ধ্বমুখী ধারায় ফিরেছে দেশের শেয়ারবাজার। প্রতিদিনই মূল্যসূচকের উত্থানের সঙ্গে বড় অঙ্কের লেনদেন হচ্ছে। এতে শেয়ারবাজার নিয়ে নতুন করে স্বপ্ন বুনতে শুরু করেছেন বিনিয়োগকারীরা। দীর্ঘদিনের লোকসান কাটিয়ে মুনাফা করার স্বপ্ন দেখছেন বেশিরভাগ বিনিয়োগ।

শেয়ারবাজারের এ পরিস্থিতিতে পচা বা ‘জেড’ গ্রুপের কোম্পানির দাম বাড়ার পালেও হাওয়া লেগেছে। শেয়ারবাজারে একটি চক্র প্রায় বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে এভাবে জেড গ্রুপের শেয়ার দাম বাড়ায়। এতে ওই চক্র মুনাফা হাতিয়ে নিলেও ক্ষতির মুখে পড়েন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।

শেয়ারবাজারে মাঝে মধ্যেই দুর্বল কোম্পানির শেয়ারের দাম বাড়লেও গত সপ্তাহে দাম বাড়ার ক্ষেত্রে মহাদাপট দেখিয়েছে পচা কোম্পানি হিসেবে পরিচিত ‘জেড’ গ্রুপের কিছু প্রতিষ্ঠান। প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দাম বাড়ার শীর্ষ ১০টি স্থানের নয়টিই জেড গ্রুপের কোম্পানির দখলে ছিল।

এর মধ্যে সব থেকে বেশি দাপট দেখিয়েছে শাহিনপুকুর সিরামিক। এক শ্রেণির বিনিয়োগকারীদের কাছে কোম্পানিটির শেয়ার দাম এতটাই আকর্ষণীয় হয়ে উঠে সপ্তাহজুড়ে দাম বেড়েছে ৪৫ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এমন দাম বাড়ার পরও এক শ্রেণির বিনিয়োগকারী তাদের কাছে থাকা প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার বিক্রি করেননি। ফলে সপ্তাহজুড়ে কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১ কোটি ৭২ লাখ ৩৭ হাজার টাকা।

হঠাৎ শেয়ারের এমন দাম বাড়লেও কোম্পানিটির লভ্যাংশের চিত্র মোটেই ভালো না। ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, ২০১২ সালের পর কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের কোনো লভ্যাংশ দেয়নি। যে কারণে পঁচা ‘জেড’ গ্রুপে স্থান করে নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

গত সপ্তাহে দাম বাড়ার শীর্ষ তালিকার দ্বিতীয় স্থানটি দখল করেছে আর এক পচা কোম্পানি অ্যারামিট সিমেন্ট। বছরের পর বছর ধরে লোকসানে নিমজ্জিত কোম্পানিটি ২০১৬ সালের পর বিনিয়োগকারীদের কোনো লভ্যাংশ দেয়নি। অথচ এই কোম্পানিটির শেয়ার দাম গত সপ্তাহজুড়ে বেড়েছে ৪২ দশমিক শূন্য শতাংশ।

দাম বাড়ার শীর্ষ তালিকার তৃতীয় স্থানটি দখল করেছে আর এক পচা কোম্পানি মিথুন নিটিং। গত সপ্তাহজুড়ে এই কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ৪০ দশমিক ৯৬ শতাংশ। শেয়ারের এমন অস্বাভাবিক দাম বাড়া কোম্পানিটি লোকসানে নিমজ্জিত হওয়ায় ২০১৬ সালের পর বিনিয়োগকারীদের কোনো ধরনের লভ্যাংশ দেয়নি।

সপ্তাহজুড়ে শেয়ারের ৪০ শতাংশ দাম বাড়ার মাধ্যমে পরের স্থানটি দখল করেছে ২০১৬ সাল থেকে কোনো লভ্যাংশ না দেয়া তুং হাই নিটিং। পরের স্থানে থাকা আর এক পচা কোম্পানি অ্যাপোল ইস্পাতের শেয়ার দাম বেড়েছে ৩৯ দশমিক ৪৭ শতাংশ।

দাম বাড়ার শীর্ষ দশে স্থান করে নেয়া ভালো বা ‘এ’ গ্রুপের একমাত্র কোম্পানি স্টাইল ক্রাফট রয়েছে ছয় নম্বরে। গত সপ্তাহজুড়ে এই কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ৩৮ দশমিক ৫৩ শতাংশ। তবে এর পরের চারটি স্থানও দখল করেছে ‘জেড’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান।

এর মধ্যে ঢাকা ডাইংয়ের ৩৭ দশমিক ৭৪ শতাংশ, কেয়া কসমেটিকসের ৩৭ দশমিক ৫০ শতাংশ, বিডি থাই অ্যালুমেনিয়ামের ৩৭ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনের ৩৭ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ দাম বেড়েছে।

এমএএস/এমআরএম/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]