মেডট্রোনিকের ১০০ ভেন্টিলেটর বাজারে আনছে ওয়ালটন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:২২ পিএম, ১২ এপ্রিল ২০২১

মেডিকেল প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদক কোম্পানি মেডট্রোনিকের সহায়তায় তৈরি হওয়া ১০০ ভেন্টিলেটর বাজারে আনছে বাংলাদেশি ব্র্যান্ড ওয়ালটন। কোভিড-১৯ রোগীর চিকিৎসায় এটি ভূমিকা রাখবে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

ওয়ালটন জানায়, ‘পিবি ৫৬০’ মডেলের স্পেফিকেশনে ‘ডব্লিউপিবি ৫৬০’ ভেন্টিলেটরটির মেডট্রোনিকের তৈরি। সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাজারে আনছে ওয়ালটন। ভেন্টিলেটরটির ক্লিনিকাল ট্রায়াল ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে এবং বিক্রির জন্য প্রস্তুত রয়েছে ১০০টি ভেন্টিলেটর। প্রতিটি ভেন্টিলেটরের দাম পড়বে ৭ লাখ টাকা। আগামীকাল তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ভেন্টিলেটরটির উদ্বোধন করবেন। এর মাধ্যমে ভেন্টিলেটর উৎপাদনকারী হিসাবে বাংলাদেশের প্রথম ফার্ম হবে ওয়ালটন।

এর আগে গত বছর মেডট্রোনিকের এই মডেলটির নকশা বিশ্বের ৩৫টি দেশে উন্মোচন করা হয়। সে সময় ওয়ালটন বিশ্বের প্রথম প্রতিষ্ঠান হিসেবে মেডট্রোনিকের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করে। পরে অন্যান্য অনেক দেশের বড় বড় প্রতিষ্ঠান মেডট্রোনিকের সঙ্গে চুক্তি করে। প্রাথমিকভাবে আয়ারল্যান্ডের তৈরি ১০০টি ভেন্টিলেটর বাজারে আনলেও শিগগিরই বাংলাদেশেই উৎপাদন হবে এই ভেন্টিলেটর।

এ বিষয়ে ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর (ডিএমডি) ইঞ্জিনিয়ার লিয়াকত আলী জাগো নিউজকে বলেন, গত বছর যখন কোভিড প্রকট আকার ধারণ করে তখন স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন ছিলাম। বিশেষ করে ভেন্টিলেটরের সংকট কিভাবে সামলাতে পারি। সেটাকে মাথায় রেখে আমরা শুধুমাত্র ভেন্টিলেটর নয়, মহামারির মধ্যে দেশীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে ভূমিকা রাখতে চেয়েছিলাম।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যদি একটা মানুষের জীবন বাঁচাতে পারি সেক্ষেত্রে খুশি হব। সেজন্য কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করি তার মধ্যে ভেন্টিলেটর একটা। এই উদ্যোগের পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে আইসিটি মন্ত্রণালয়। তারাও কাজ করে যাচ্ছিল। বিশ্ববিখ্যাত ভেন্টিলেটর উৎপাদনকারী মেডট্রোনিক ইচ্ছা প্রকাশ করে তাদের একটি মডেল ওপেন করে দেয়ার। আমরা সেই সুযোগটি নেয়ার চেষ্টা করি। আইসিটি মিনিস্ট্রির মাধ্যমে আমরা মেডট্রোনিকের চেয়ারম্যানের সঙ্গে মিটিং করে একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে চুক্তি করি।’

ওয়ালটনের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘পর্যায়ক্রমে আমরা দুইটি পদ্ধতিতে আগাই। একটি হলো ইমিডিয়েট সাপোর্ট দেয়ার জন্য। কিভাবে মেডট্রোনিকের পণ্যকে বাংলাদেশে নিয়ে আসা যায়। কারণ সেই মুহূর্তে সাপ্লাই চেইনের ক্রাইসিস হচ্ছিল। সব দেশেই এই ভেন্টিলেটর কিনতে চাচ্ছিল। আমরা তাদের মডেলকে বাংলাদেশের সঙ্গে সংযোজিত করে কিভাবে দিতে পারি এবং সেই মডেল থেকে কিভাবে নিজেদের দেশের একটি মেশিন তৈরি করতে পারি সেটি নিয়েই কাজ করছিলাম। তারমধ্যে মেডট্রোনিকের একটি মডেল ইন্টিগ্রেটেড বাই ওয়ালটন এখন পুরোপুরি বিক্রির জন্য প্রস্তুত।’

তিনি জানান, প্রাথমিকভাবে ১০০টি ভেন্টিলেটর রেডি আছে মেডিকেল সার্ভিসে সরবরাহের জন্য। এগুলোর প্রত্যেকটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৭ লাখ টাকা। এটা যে কেউ কিনতে পারবে।

পরবর্তীতে বাংলাদেশেও এই ভেন্টিলেটর তৈরি করা হবে বলে জানান লিয়াকত আলী।

আইএইচআর/জেডএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]