নিত্যপণ্যের বাজারে অভিযান, ৮৬ প্রতিষ্ঠানকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:১৭ পিএম, ০৮ মে ২০২১

রমজান উপলক্ষে নিত্যপণ্যের দাম স্থিতিশীল রাখতে সারাদেশে বিভিন্ন বাজার ও প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

এ সময় ভোক্তাস্বার্থ বিরোধী বিভিন্ন অপরাধে ৮৬টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে মোট ৪ লাখ ১২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। শনিবার (৮ মে) দিনব্যাপী এ অভিযান চলে।

এদিন ঢাকা মহানগরীতে ১০টি মনিটরিং টিম ১৫টি পাইকারি ও খুচরা বাজার এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে তদারকি করে।

রাজধানীতে অভিযান পরিচালনা করেন অধিদফতরের প্রধান কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. মাসুম আরেফিন, আফরোজা রহমান, বিকাশ চন্দ্র দাস, সহকারী পরিচালক শাহনাজ সুলতানা, ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ফাহমিনা আক্তার ও প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তাহমিনা বেগম।

এছাড়া বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক পরিচালিত মোবাইল টিমের সঙ্গে বাজার তদারকি করেন অধিদফতরের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক রজবী নাহার রজনী, প্রণব কুমার প্রামাণিক, ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মাগফুর রহমান ও সহকারী পরিচালক মাহমুদা আক্তার।

রাজধানীর বাইরে বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক ও জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালকের নেতৃত্বে বিভিন্ন বাজার ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তদারকি এবং সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

রাজধানীর উত্তর বাড্ডা, মধ্য বাড্ডা, ভাটারা, গুদারাঘাট, বসুন্ধরা কাঁচাবাজার, কাওরান বাজার, শাহ আলী বাজার, মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেট, টাউনহল, কাঁঠালবাগান, মালিবাগ, শান্তিনগর, খিলগাঁও, বাসাবো, রামপুরা এলাকার বিভিন্ন কাঁচাবাজার, নিত্যপণ্যের দোকান, ফার্মেসি ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে তদারকিকালে সবজি, পেঁয়াজ, ছোলা, ডাল, ভোজ্যতেল, চিনি, খেজুরসহ অন্যান্য নিত্যপণ্য যৌক্তিকমূল্যে বিক্রয় হচ্ছে কি-না তা তদারকি করা হয়।

একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মূল্য তালিকা সঠিকভাবে প্রদর্শন, নির্ধারিত দামে পণ্য বিক্রয়, পণ্যের ক্রয় রসিদ সংরক্ষণ, মূল্য তালিকায় প্রদর্শিত মূল্যের সঙ্গে বিক্রয় রসিদের গরমিল, সঠিক ওজন, মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য ও ওষুধ, নকল পণ্যসহ ভোক্তাস্বার্থ বিরোধী কোনো অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে কি-না তা পর্যবেক্ষণ করা হয়।

তদারকিকালে বাজারে নিত্যপণ্যের পর্যাপ্ত মজুত, সরবরাহ স্বাভাবিক ও পণ্যমূল্য স্থিতিশীল পরিলক্ষিত হয় এবং সরকার নির্ধারিত দামে ভোজ্যতেল, পেঁয়াজ, ছোলা, ডাল, চিনিসহ অন্যান্য নিত্যপণ্য বিক্রি হতে দেখা যায়।

এ সময় পণ্যের মূল্যতালিকা প্রদর্শন না করা, নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দামে পণ্য বিক্রয়, মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রয়ের অপরাধে ফার্মেসিসহ কয়েকটি নিত্যপণ্যের দোকানকে জরিমানা আরোপ করা হয় এবং এ ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড হতে বিরত থাকার জন্য সতর্ক করা হয়।

অভিযানে সহযোগিতা প্রদান করেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, স্বাস্থ্য বিভাগ, কৃষি বিভাগ, মৎস্য বিভাগ, ক্যাবসহ সংশ্লিষ্ট শিল্প ও বণিক সমিতির প্রতিনিধিবৃন্দ।

এছাড়া ভোক্তা অধিকার বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ভোক্তা ও ব্যবসায়ীবৃন্দের মধ্যে লিফলেট, প্যাম্পলেট বিতরণ এবং করোনাকালে মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য হ্যান্ডমাইকে সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হয়।

এছাড়াও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে ভোক্তা অধিকার নিশ্চিতকরণসহ স্থিতিশীল বাজার ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

অধিদফতরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা বলেন, পবিত্র রমজান ও মহামারিকালে নিত্যপণ্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও বাজার তদারকি ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। ভোক্তাস্বার্থ সুরক্ষায় নিত্যপণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন, ক্রয় রশিদ সংরক্ষণ এবং যৌক্তিক ও ন্যায্যমূল্যে নিত্যপণ্য বিক্রয় করতে ব্যবসায়ীগণকে আহ্বান জানান তিনি।

ইএআর/জেডএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]