আজও বিমার শেয়ারের ঢালাও দরপতন

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৪৩ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩
ফাইল ছবি

সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস বুধবারের মতো আজ বৃহস্পতিবারও শেয়ারবাজারে বিমা কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দামে ঢালাও দরপতন হয়েছে। দুইদিনের পতনে অনেক বিমা কোম্পানির শেয়ারের দাম কমে গেছে ১০ শতাংশের মতো। এতে সার্বিক শেয়ারবাজারেও নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

বিমা কোম্পানির শেয়ারের ঢালাও দরপতন হওয়ার কারণে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান মূল্যসূচক কমেছে। একই সঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ।

দিনের লেনদেন শেষে প্রায় সবকয়টি বিমা কোম্পানির শেয়ারের দাম কমলেও এদিন লেনদেনের শুরুতে অধিকাংশ বিমার শেয়ারের দাম বাড়ে। এতে মূল্যসূচকেও পড়ে ইতিবাচক প্রভাব। লেনদেনের এক পর্যায়ে ডিএসইর প্রধান সূচক বেড়ে যায় ১৩ পয়েন্ট।

কিন্তু লেনদেনের শেষ ঘণ্টায় এসে একের পর এক বিমা কোম্পানির শেয়ারের দাম কমতে থাকে। যার প্রভাব পড়ে অন্য খাতেও। ফলে একদিকে দাম কমার তালিকা বড় হয়, অন্যদিকে প্রধান মূল্যসূচক ঋণাত্মক হয়ে পড়ে।

দিনের লেনদেন শেষে বিমা খাতের মাত্র ৪টি কোম্পানির শেয়ার দাম বেড়েছে। বিপরীতে ৪৬টি বিমা কোম্পানির শেয়ারের দাম কমেছে। আর সব খাত মিলিয়ে ডিএসইতে ৬৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৮৪টির এবং ১৫৬টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বিমা কোম্পানিগুলোর শেয়ারের এমন দরপতনের দিনে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স শূন্য দশমিক ৮৮ পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ৩০৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ৩৬৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এছাড়া বাছাই করা ভালো ৩০টি কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক আগের দিনের তুলনায় ৫ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ১৪৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

দিনভর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৭৩৫ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ৮৫৫ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ১২০ কোটি ১২ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার। কোম্পানিটির ২৫ কোটি ৮২ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ফু-ওয়াং ফুডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ১৫ লাখ টাকার। ২৩ কোটি ৫৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে জেমিনি সি ফুড।

এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- মেট্রো স্পিনিং, সি পার্ল বিচ রিসোর্ট, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস, সোনালি পেপার, মিরাকেল ইন্ডাস্ট্রিজ, এমারেল্ড অয়েল এবং এশিয়া ইন্স্যুরেন্স।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই কমেছে ৭ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ১৬৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪৮টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৫৩টির এবং ৬২টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ২৭ কোটি ৮৩ লাখ টাকা।

এমএএস/কেএসআর/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।