এইচএসসির রেজাল্ট রিভিউ করে একজনের ফল পরিবর্তন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৭ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১
ফাইল ছবি

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল রিভিউ করে একজন শিক্ষার্থী ফল পরিবর্তনের মাধ্যমে জিপিএ-৫ পেয়েছে। রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) আন্তঃশিক্ষা সমন্বয় বোর্ড থেকে এইচএসসির রিভিউ ফলাফল প্রকাশের পর এ তথ্য জানা যায়।

জানা গেছে, করোনার কারণে ২০২০ সালে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা না নিয়ে জেএসসি-এসএসসির ফলাফলের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করে অটোপাস দেয়া হয়। তারপরও সংক্ষুব্ধদের ফল রিভিউ করার সুযোগ দেয় শিক্ষা বোর্ড। এতে ফলে সন্তুষ্ট না হয়ে প্রায় ১৫ হাজার ৭২৭ জন শিক্ষার্থী তা পরিবর্তনের জন্য শিক্ষা বোর্ডে রিভিউ আবেদন করে। এর মধ্যে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে আবেদন করে ৪ হাজার ১১৫ জন। এর মধ্যে মাত্র একজন শিক্ষার্থীর ফল পরিবর্তন হয়েছে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, ওই পরীক্ষার্থী ২০১৪ সালে জেএসসি পরীক্ষা দিয়েছিল। পরের বছর ২০১৫ সালে সে মানোন্নয়ন পরীক্ষা দিয়েছিল। কিন্তু বোর্ড ২০১৪ সালের ফলাফল আগের ফল ধরে এইচএসসি ফল তৈরি করে। ওই শিক্ষার্থীর আবেদন যাচাই-বাছাই করার পর বোর্ড দেখতে পায়, সে ২০১৫ সালে মানোন্নয়নে আগের চেয়ে ভালো ফল করেছে। পরে সেই ফল ধরে তার সংশোধিত ফলাফল দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সিনিয়র সিস্টেম অ্যানালিস্ট প্রকৌশলী মো. মঞ্জুরুল কবীর বলেন, মোট আবেদনকারীর মধ্যে থেকে একজনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। সে জেএসসিতে মানোন্নয়ন দিয়েছিল। আমরা আগের ফল নিয়ে মূল্যায়ন করেছিলাম, তার আবেদনের প্রেক্ষিতে পরের ফল ধরে তার এইচএসসিতে জিপিএ বেড়েছে।

রোববার বিকেল ৪টায় রিভিউয়ের ফল বোর্ডের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

গত ৩০ জানুয়ারি এইচএসসি ও সমমানের মূল্যায়নের ফল প্রকাশ করা হয়। এর পরদিন ৩১ জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ফল রিভিউ করার সুযোগ পান শিক্ষার্থীরা। ফল রিভিউ চেয়ে ১১টি শিক্ষা বোর্ডে আবেদন করেন ১৫ হাজার ৭২৭ জন শিক্ষার্থী।

বোর্ডগুলোর দেয়া তথ্যানুযায়ী, রিভিউ আবেদনের শীর্ষে রয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। এ বোর্ডে আবেদনের সংখ্যা ৪ হাজার ১১৫ জন, বরিশাল বোর্ডে ৬৪২, চট্টগ্রাম বোর্ডে এক হাজার ৮৮৫, কুমিল্লা বোর্ডে এক হাজার ২৭, দিনাজপুর বোর্ডে এক হাজার ২২৭, যশোর বোর্ডে এক হাজার ৬৯৪, ময়মনসিংহ বোর্ডে ৯১৬, রাজশাহী বোর্ডে এক হাজার ৯২২, সিলেট বোর্ডে ৯৪৭, কারিগরি বোর্ডে ৫৩৫ ও মাদরাসা বোর্ডে ৫১৭ জন।

এবার জেএসসি এবং এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার বিষয় ‘ম্যাপিং’ (বিষয়ভিত্তিক নম্বর গণনা) করে ফল তৈরির কারণে আগের দুটি পাবলিক পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়ার পরও ৩৯৬ জন পরীক্ষার্থী এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পাননি।

গত ৩০ জানুয়ারি এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এবার অটোপাস দেয়ায় পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন করা সব শিক্ষার্থীই পাস করেছে। পাস করাদের মধ্যে ১ লাখ ৬১ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে।

এমএইচএম/এআরএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]