রেকর্ড গড়েছে মেলা

সায়েম সাবু
সায়েম সাবু , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৮ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৮:২৭ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
ছবি-ফাইল

বই প্রকাশ এবং বিক্রির দিক দিয়ে এবারের মেলা রেকর্ড গড়বে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। মেলায় প্রায় শত কোটি টাকা বই বিক্রি হতে পারে বলে ধারণা করছেন তিনি।

সমাপ্তি দিনে জাগো নিউজ-এর সঙ্গে বইমেলার সার্বিক বিষয় নিয়ে কথা বলেন অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। মেলার শুরু বেলায় আতঙ্ক ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, একটি মামলাকে কেন্দ্র করে অনিশ্চিয়তা ছিল বটে। কিন্তু প্রথম সপ্তাহেই অনিশ্চিয়তা কেটে গেছে। শুরু থেকেই প্রাণ ছিল মেলায়। আর মধ্য সময়ের পর থেকে রীতিমতো উৎসবে রূপ নিলো।

বইয়ের বিক্রির ব্যাপারে বলেন, শুরু থেকে ভালো বিক্রি হচ্ছিল, তা বলছি না। কিন্তু ধারাবাহিকভাবে বিক্রি যেভাবে বেড়েছে, তা নিয়ে আশাবাদ প্রকাশ করতেই পারি যে, সমস্ত রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে এবার। অনেকেই ধারণা প্রকাশ করছেন, একশ কোটি টাকার বই এবারে বিক্রি হয়েছে। তবে আমি মনে করি, গতবারের রেকর্ডকে ছাড়াবে। আর এবারে বইও প্রকাশ হয়েছে রেকর্ড সংখ্যাক। মেলার ২৭তম দিনেই আগের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

বইয়ের মান প্রসঙ্গে বলেন, এবারে প্রায় ৫শ’র মতো মানসম্পন্ন বই প্রকাশ পেয়েছে। এটি একটি বড় অর্জন এবং মেলার সার্থকতা ঠিক এখানেই।

পুলিশ বইয়ের মান যাচাই বা মনিটরিং করছেন’ এটি শিল্প-সাহিত্যের বিকাশে অন্তরায় কি-না-এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, সব কিছুই তো লাগাম ছাড়া চলতে পারে না। ধর্ম অবমাননা এবং ইতিহাস বিকৃতি নিয়ে তো একজন লেখক যা ইচ্ছে তাই লিখতে পারেন না। অন্যের বিশ্বাসে আঘাত দেয়া মানেই শিল্পের বিকাশ নয়, প্রগতিশীলতা নয়। কিছুটা নিয়ন্ত্রণ রাখা তো সময়ের দাবি।

মেলা ব্যবস্থাপনার ঘাটতি নিয়ে বলেন, ভালোর শেষ থাকে না। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি বইমেলাকে বিশ্বমানের করে তোলা। এরপরেও কিছু ত্রুটি থাকেই। অভিজ্ঞতার আলোকে আগামীতে পূর্ণতা আসবে বলে মনে করি।

এএসএস/এমএইচ/এমআরএম/এমএস