নিরাপত্তা পেলে পুলিশকে তথ্য দেবেন রুবি

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪৭ এএম, ১৩ আগস্ট ২০১৭

আমেরিকাতে টাইমস নামের একটি অনলাইন বাংলা টিভিতে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সালমান শাহ হত্যা মামলার অন্যতম আসামী রুবি সুলতানা। যিনি গেল সোমবার নিজেই বলছিলেন এই খুনের সঙ্গে জড়িত কারা তিনি সব জানেন। আবার দু’দিন পর রুবি সব অস্বীকার করেন। রুবি তখন জানান, তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন, অসুস্থ। তার সঠিক চিকিৎসা দরকার।

তবে টাইমস টিভির সাক্ষাৎকারে আজ রোববার (১৩ আগস্ট) রুবি বলেন, ‘আমি আসলে পাগল না। বাঁচার জন্য নিজেকে পাগল বলতে বাধ্য হয়েছি। আমি যদি ভালো বউ না হতাম, তাহলে ফিলাডেলফিয়াতে কে আমাকে খাওয়াত? আমি আমার স্বামীর হুমকির মুখে নিজেকে পাগল বলেছি। আমার মনে হচ্ছিলো আমাকে খুন করা হবে। তারপর পাগল মানুষ সুইসাইড করেছি বলে চালিয়ে দেয়া হবে।’

খুনের কথা বলার জন্য কেউ চাপ সৃষ্টি করেছে কিনা জানতে চাইলে রুবি বলেন, ‘আমাকে কেউ চাপ দেয়নি। আমি ভিডিও করার পর আমার নিরাপত্তা ছিল না।’

নিরাপত্তা পেলে বাংলাদেশের তদন্ত কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলবেন রুবি। এ বিষয়ে রুবি বলেন, ‘আমি ৮ নম্বর আসামি আমি জানি না আমাকে কীভাবে ফাঁসানো হবে। যে দেশে ২১ বছরেও একটি হত্যার বিচার হয় না, সেখানে গিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগব এটাই স্বাভাবিক। তবে পুরো নিরাপত্তা পেলে আমি তদন্ত কর্মকর্তাদের সাথে যা জানি শুরু থেকে সবই বলতে রাজি আছি।’

স্বামীর বাসা ফিলাডেলফিয়াতে তিনি আর ফিরবেন না, সেখানে এখন আর তার নিরাপত্তা নেই। গেলেই মেরে ফেলতে পারে বলে মনে করেন রুবি। তিনি জানান, শিখা নামের একজন নিউইয়র্কে তাকে আশ্রয় দিয়েছেন। এ জন্যই টাইম টেলিভিশনে এসে ফের প্রথম দেওয়া ভিডিওর মতোই হত্যা সম্পর্কিত কথাগুলো বলেন রুবি। সেখানে তিনি আরও অনেক কথা বলেন সালমান খুনের প্রসঙ্গে। সামিরা ও তার পরিবার নিয়েও অনেক কথা বলেন তিনি। উঠে আসে শাবনূরের প্রসঙ্গও।

অসংখ্য ভিডিও দিয়ে কেন বিভ্রান্ত করলেন এমন প্রশ্নের জবাবে রুবি বলেন, ‘আমি স্বামীর চাপে পড়েই নিজেকে পাগল বলি। আমি প্রথম ভিডিও দেওয়ার পর আমাকে বাসায় নিয়ে যায় আমার স্বামী। পরে তিনি আমাকে বলেন যে আরেকটা ভিডিওতে দিয়ে বলো- ‘তুমি মানসিক ভারসাম্যহীন’ যা বলেছ ভুল বলেছে। কিন্তু এরপর বুঝি সত্যিই তারা আমাকে মানসিক ভারসাম্যহীন প্ল্যান করছে। এমনকি মেরে ফেলার চিন্তাও করছে। কিন্তু যে বাসা ছেড়েছি, সে বাসায় ফিরব না। ওখানে আমার মৃত্যুর আশঙ্কা রয়েছে, আমাকে মেরে ফেলা হতে পারে।’

তিনি বলেন, মৃত্যুর পর সালমানের লাশ দেখেছিলেন তিনি। সালমানের পুরো মুখ ছিলো ঘন নীল আর ঠোঁটগুলো ছিলো কালো। তবে তাকে তিনি ঝুলন্ত অবস্থায় দেখেননি বলেও মন্তব্য করেন রুবি।

তার দাবি এটা পূর্ব পরিকল্পিত একটি হত্যা পারে। সামিরার আচরণ যথেষ্ট সন্দেহজনক। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা দরকার। সেইসঙ্গে সালমানের হত্যার সঙ্গে রুবির কোনো সম্পৃক্ততা নেই বলেও জানান তিনি।

এনই/এলএ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]

আপনার মতামত লিখুন :