বাংলাদেশের কোল খালি করে গেলেন বুলবুল ভাই : মনির খান

মাসুম আওয়াল
মাসুম আওয়াল মাসুম আওয়াল , স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশিত: ০১:১১ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০১৯

বরেণ্য গীতিকার, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল আজ মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) ভোররাতে মৃত্যুবরণ করেছেন। হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে ছয়টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন। সেই শোকে শোকাহত পুরো সংগীতাঙ্গণ। তার লেখা ও সুরকরা অসংখ্য জনপ্রিয় গান রয়েছে মানুষের হৃদয়ে হৃদয়ে। তার লেখা ও সুর করা গান গেয়ে শিল্পী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন অনেকেই। শোকে পাথর হয়েছেন যেনো তারা।

২০০১ সালে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের সুর ও সংগীতে ‘প্রেমের তাজমহল’ সিনেমায় ‘এই বুকে বইছে যমুনা’ গানটি গাওয়ার জন্য প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান মনির খান। আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের সুরে ‘দুই নয়নের আলো’ সিনেমায় গান গাওয়ার জন্যও একই সম্মানে ভূষিত হয়েছিলেন তিনি। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে সেই স্মৃতি মনে করে প্রায় কেঁদেই ফেললেন তিনি।

মনির খান জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমি আসলে বলার ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। আমার প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাই প্রেমের তাজমহল সিনেমার গান গেয়ে। গানটি লিখেছিলেন ও সুর করেছিলেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল ভাই। এরপর তার লেখা ও সুরকরা অসংখ্য গান গাওয়ার সুযোগ হয়েছে আমার। তার এই চলে যাওয়া সংগীত জগতে বিরাট একটা শূণ্যতা তৈরি করে গেল।’

মনির খান আরও বলেন, ‘সহজ কথায় বলতে গেলে একটা সন্তান মারা গেলে পিতা-মাতার কোল খালি হয়, এই রকম একজন গুনী মানুষ মারা গেলে দেশের কোল খালি হয়ে যায়। তেমনি মনে হচ্ছে বাংলাদেশের কোল খালি করে গেলেন বুলবুল ভাই। তাকে হারানোর এই ক্ষতি কখনই পূরণ হবার নয়।

তার সুন্দর কর্মের মাধ্যমে আল্লাহ তাকে বাঁচিয়ে রাখবে। আমি একটা জিনিস বিশ্বাস করি। মানুষ তার বয়স দিয়ে বাঁচেনা, বাঁচে তার কর্ম দিয়ে। সেই অর্থেই আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল অনেক দিন বেঁচে থাকবেন। তার রুহের মাগফিরাত কামনা করছি আল্লাহ তাকে বেহেস্ত নসিব করুক।’

বুলবুলের একমাত্র সন্তানের উদ্দেশ্যে মনির খান বলেন, ‘বুলবুল ভাইয়ের একমাত্র সন্তান মন এর সুস্থ সুন্দর জীবন কামনা করছি। তার ভবিষ্যত অনেক ভালো হোক। আমরা শিল্পী পরিবার সারাজীবন তার পাশে থাকবো।’

উল্লেখ্য, আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের মরদেহ আজ (মঙ্গলবার) বারডেম হিমাগারে রাখা হয়েছে।আগামীকাল (বুধবার) সকাল ১১টায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে সর্বস্তরের জনগণের শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য বরেণ্য এই মানুষটির মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেয়া হবে।

১৯৫৭ সালের ১ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। তিনি একাধারে গীতিকার, সুরকার এবং সঙ্গীত পরিচালক। সত্তর দশকের শেষ লগ্ন থেকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পসহ সঙ্গীত শিল্পে সক্রিয় ছিলেন। ১৯৭১ সালে মাত্র ১৫ বছর বয়সে তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মান একুশে পদক, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং রাষ্ট্রপতির পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তিনি।

এমএবি/এলএ/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]

আপনার মতামত লিখুন :